| প্রচ্ছদ

জাপানে টাইফুনের আঘাতে ১৪ জন নিহত

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৮ বার। প্রকাশ: ১৩ অক্টোবর ২০১৯ ।

জাপানে ভয়াবহ টাইফুনের আঘাতে অন্তত ১৪ জন নিহত হয়েছেন, নিখোঁজ রয়েছেন আরও অনেকে। ঝড়ের আঘাতে ভেঙে পড়েছে বহু ঘর-বাড়ি, প্লাবিত হয়েছে অনেক এলাকা। গত ৬০ বছরে এটাকে জাপানের সবচেয়ে ভয়াবহ ঝড় মনে করা হচ্ছে।

স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যা ৭টার কিছুক্ষণ আগে রাজধানী টোকিওর দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলীয় ইজু দ্বীপে ঘণ্টায় ২২৫ কিলোমিটার বেগে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানে। খবর এএফপির 

বৃষ্টির কারণে নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে প্লাবিত হয়েছে অনেক এলাকা । এছাড়া ঝড়ের প্রভাবে টোকিওর কাছে কাওয়াসাকিতে বিভিন্ন এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। 

টাইফুন হাজিবিস এখন উত্তর দিকে সরে যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, রবিবারের পর এটি উত্তর প্রশান্ত মহাসাগরে ফিরে যাবে । 

এ ঝড়ের প্রভাবে গত ২৪ ঘণ্টায় টোকিওতে ইতিহাসের সর্বোচ্চ ৭০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। প্রলয়ঙ্করী এই ঝড়ের কারণে দেশটিতে চলমান রাগবি ওয়ার্ল্ড কাপের কয়েকটি ম্যাচ স্থগিত করা হয়েছে। 

টাইফুনের কারণে ৫ লক্ষের বেশি বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

টাইফুনের প্রভাবে শুক্র ও শনিবার ফুজি মাউন্টের কাছে হাকোন শহরে ১ মিটারেরও বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে, যা জাপানে গত ৪৮ ঘন্টার মধ্যে সর্বোচ্চ বলে রেকর্ড করা হয়েছে।

টাইফুনের প্রভাবে নাগানো অঞ্চলে চিকুমা নদীর তীররর্তী অঞ্চল প্লাবিত হলে সেখানকার বাসিন্দাদের হেলিকপ্টার দিয়ে উদ্ধার করা হয়। 

এর আগে ভারি বৃষ্টি বয়ে নিয়ে আসা এই প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে জলোচ্ছ্বাস এবং ভূমিধস হতে পারে বলে সতর্ক করেছিল দেশটির আবহাওয়া বিভাগ।

গত মাসেই টাইফুন ফাক্সাইয়ের আঘাতে জাপানের বিভিন্ন অঞ্চলে বাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। ওই টাইফুনে তখন ৩০ হাজারের বেশি বাড়ি ধ্বংস হয় যার অধিকাংশই এখনও মেরামত করা হয়নি।

জাপানে বছরে ২০টির মত টাইফুন হলেও রাজধানী টোকিওতে সাধারণত এত বড় মাপের ক্ষয়ক্ষতি হয় না। 

মন্তব্য