| প্রচ্ছদ

নাইজেরিয়ার বিপক্ষেও জয়হীন ব্রাজিল

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪০ বার। প্রকাশ: ১৩ অক্টোবর ২০১৯ ।

ম্যাচের শুরুতে নেইমারের ইনজুরি ব্রাজিলের জন্য ধাক্কা হয়ে আসে। প্রথমার্ধের ৩৫ মিনিটে গোল করে ধাক্কা আরও জোরালো করেন নাইজেরিয়ার আরিবো। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্রাজিল ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার কাসেমিরো সেই গোল শোধ করেন। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কিছু সহজ সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি সেলেকাওরা। শেষ পর্যন্ত তাই ১-১ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তিতের শিষ্যদের। এ নিয়ে টানা চার ম্যাচে জয়হীন ব্রাজিল।

জুলাইয়ে ঘরের মাঠে কোপা আমেরিকার ফাইনালে পেরুর বিপক্ষে সর্বশেষ ৩-১ গোলের জয় পায় ব্রাজিল। উচিয়ে ধরে শিরোপা। এরপর সেপ্টেম্বরে কলম্বিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে ২-২ গোলে সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। পরের ম্যাচে পেরুর বিপক্ষে তিতের শিষ্যরা হারে ১-০ গোলে। অক্টোবরের আন্তর্জাতিক বিরতিতে সিঙ্গাপুরে সেনেগালের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ১-১ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় সেলেকাওদের। নাইজেরিয়ার বিপক্ষেও জয়হীন থাকল ব্রাজিল।

ম্যাচের ১২ মিনিটের মাথায় হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়েন নেইমার। ব্রাজিল কোচ তিতের পরিকল্পনায় লাগে ধাক্কা। সুযোগ নিয়ে ১৮ মিনিটের মাথায় এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে যায় সুপার ঈগলসরা। ক্রসটা ঠিক মতো ধরতে পারলেই হয়ে যেত গোল। তবে ৩৫ মিনিটের সুযোগটা তারা মিস করেনি। তার আগে অবশ্য ২৮ মিনিটে জেসুসের নেওয়া ভালো একটা শট ফেরান নাইজেরিয়া গোলরক্ষক উজহো। ঠিক দুই মিনিট পরে আবার সুযোগ হারায় ব্রাজিল। কিন্তু দিতে না পারার খেসারত হিসেবে পিছিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে তারা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। এরপর জেসুস ৫৬ মিনিটে ভালো একটা শট নেন। কিন্তু নাইজেরিয়া গোলরক্ষক সেটিও ফিরিয়ে দেন। ম্যাচের ৬০ মিনিটে কাসেমিরোর দারুণ এক হেড গোলবারে লেগে ফিরে আসে। পরের সময়টাও ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ রাখে কুতিনহোরা। ম্যাচের ৭০ ভাগ বল পায়ে রাখা তারই প্রমাণ। নাইজেরিয়ার অর্ধে শেষ ২০ মিনিটেও চাপ ধরে রাখে তিতের শিষ্যরা। কিন্তু গোল করতে পারেননি ফিরমিনো-এভারটনের বদলি নামা গ্যাব্রিয়েল বারবোসা-রির্কালিসন কিংবা জেসুসের বদলি নামা পাকেতারা।

মন্তব্য