| প্রচ্ছদ

স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্য, সিদ্দিকের সংসারে ভাঙনের সুর

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৩ বার। প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০১৯ ।

ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান। ভালোবেসে বিয়ে করেন মডেল মারিয়া মিমকে। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভালোই কাটছিল তার সংসার। কিন্তু সম্প্রতি স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্যের জের ধরে সিদ্দিকের সংসারে নেমে এসেছে ভাঙনের সুর। খবর রটেছে বিচ্ছেদ হয়ে যাচ্ছে সিদ্দিক ও মিমের।

জানা যায় সিদ্দিকের স্ত্রী মারিয়া মিম মডেলিংয়ের সঙ্গে জড়িত অনেক দিন ধরেই। তিনি চাইছেন নিয়মিত কাজ করতে। কিন্তু সিদ্দিক চাইছেন না তার স্ত্রী শোবিজে কাজ করুক। এ নিয়ে তাদের মধ্যে তৈরি হয়েছে মানসিক দূরত্ব। তৈরি হয়েছে মনোমালিন্য। শুধু তাই নয় মিম গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন তিনি আর সিদ্দিকের সঙ্গে থাকবেন না। শিগগিরই ডিভোর্স ঘটাবেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হয় সিদ্দিকের সঙ্গে। মঙ্গলবার দুপুরে দেশ রূপান্তরকে সিদ্দিক বলেন, ‘আমাদের সংসার জীবন ৮ বছরের। সবকিছু ভালোই ছিল। গত ২৬ জুন ঈদ উপলক্ষে আমার স্ত্রী শ্বশুর বাড়ি যায়। এরপর নানা তাল বাহানা শুরু করে। সে আমাকে জানায় সে মিডিয়ায় কাজ করতে চায়। কিন্তু আমি বারণ করেছি। কারণ আমার ৬ বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। আমিও যদি শুটিংয়ে থাকি আমার স্ত্রীও যদি শুটিংয়ে থাকে তাহলে আমার সন্তানের দেখভাল করবে কে? সন্তানের স্বার্থেই আমি আমার স্ত্রীকে মিডিয়ায় কাজ করতে বারণ করেছি।’

সিদ্দিক আরও বলেন, ‘আমাদের ছেলের দেখভাল করার জন্য কাউকে না কাউকে থাকতে হবে। তার বেড়ে ওঠার সময়ে পাশে না থাকলে ছেলের ভবিষ্যৎটা নষ্ট হয়ে যাবে। এ কারণেই আমি চাই ও সংসারটাই মনোযোগ দিয়ে করুক।’

ব্যক্তিগত বিষয় মিডিয়ায় প্রকাশ করা নিয়েও বিরক্ত সিদ্দিক। তিনি বলেন, ‘আমি হঠাৎ করেই নিউজটা দেখলাম। ও সবকিছু মিডিয়ায় প্রকাশ করেছে। এসব ব্যক্তিগত বিষয় চাউর করার কারণ বুঝলাম না। নিশ্চয় কেউ তার পিছে লেগেছে। কারও প্ররোচনার কারণেই সে এমনটা করছে।’

মিমেরও তো ব্যক্তি স্বাধীনতা আছে। তারও কাজ করার অধিকার আছে। অধিকারের প্রশ্নে আপনার অবস্থান কোথায়? জবাবে সিদ্দিক বলেন, ‘গত ৮ বছরে কখনোই ওর ব্যক্তি স্বাধীনতায় আমি হস্তক্ষেপ করিনি। মিমকে ওর ইচ্ছে মতোই চলতে দিয়েছি। কিন্তু এই একটা বিষয়ে শুধু আমরা না, আমাদের সন্তানের ভবিষ্যৎও জড়িত। আর মিডিয়ার যে অবস্থা তাতে কোনোভাবেই তার প্রস্তাবে রাজি হতে পারি না। যদি কাজ করতেই চায় তাহলে ডিভোর্সের পরেই কাজ করতে হবে।’

সিদ্দিক আরও বলেন, ‘আমি আমার শ্বশুর শাশুড়ির সঙ্গে কথা বলেছি। বিষয়টা সমাধান করার চেষ্টা করছি। সে জন্য ওর সম্পর্কে অনেক কিছুই বলছি না। যদি সংসার টেকানো সম্ভব না হয় তখন আমিও ওর বিরুদ্ধে অভিযোগ করব।’

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ২৪ মে মারিয়া মিমকে ভালোবেসে বিয়ে করেন সিদ্দিক। ২০১৩ সালে তারা আরশ হোসেন নামে এক পুত্রের বাবা মা হন। ছেলে এখন বাবার সঙ্গেই থাকে।

মন্তব্য