| প্রচ্ছদ

ঐক্যফ্রন্ট বিলুপ্ত চান ডা. ইরান

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৮ বার। প্রকাশ: ২২ অক্টোবর ২০১৯ ।

২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল লেবারপার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেছেন, বিএনপি ড. কামালদের নিয়ে অযথা সময় নষ্ট করছে। খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য এখন রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রামের প্রস্তুতি নেয়া দরকার।

তিনি বলেন, বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরিচালনা ও সরকারের ভোট ডাকাতির মোকাবেলায় চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তাই নির্বাচনে সীমাহীন ব্যর্থতা, অপরিপক্কতা ও সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়নের দায়ে ঐক্যফ্রন্টকে বিলুপ্ত করা উচিত। কেন না তাদের সব কর্মকাণ্ড দেশবাসী ও জাতীয়তাবাদী শক্তির কাছে প্রশ্নবিদ্ধ।

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ লেবার পার্টির ৪২তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কীতে ‘রুখো আগ্রাসন-হটাও দুঃশাসন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন।

ডা. ইরান অভিযোগ করেন, ঐক্যফ্রন্টের নেতারা সরকারের নীলনকশা অনুযায়ী আন্দোলনমুখী বিএনপিকে নির্বাচনমুখী করেছে। পরবর্তীকালে ড. কামাল নির্বাচনী কার্যক্রম থেকে নিজেকে গুঁটিয়ে নিয়েছে। ২০ দলীয় জোটকে অকার্যকর রেখে আওয়ামী লীগকে তৃতীয় দফায় ক্ষমতাসীন করতেই ঐক্যফ্রন্টের নেতারা বন্ধু বেশে জাতীয়তাবাদী শক্তির ওপর সওয়ার হয়েছে। বিএনপির ৯০ ভাগ নেতাকর্মী বিগত নির্বাচনে পরাজয় ও খালেদা জিয়ার মুক্তি দীর্ঘায়িত হওয়ার কারণ ঐক্যফ্রন্টকে মনে করে।

তিনি আরও বলেন, ভাবতে অবাক লাগে যে, বাংলাদেশের প্রধান জনপ্রিয় দল ও জোটের প্রধান সাবেক তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া প্রায় দুই বছর মিথ্যা ও প্রতিহিংসার মামলায় কারাবন্দি। বেগম জিয়ার মুক্তি নিয়ে এ যাবৎ ঐক্যফ্রন্ট কোনো জোরাল বক্তব্য বা কার্যকর কর্মসূচি দেয়নি। বরং তারেক রহমানের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, যা হাস্যকর বটে। বেগম জিয়া বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ ও ধর্মীয় মূল্যবোধে বিশ্বাসী শক্তির ঐক্যের প্রতীক।

লেবার পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব অ্যাডভোকেট ফারুক রহমানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন- ভাইস-চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান খালেদ, এস এম ইউসুফ আলী, আমিনুল ইসলাম আমিন, আলাউদ্দিন আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমাউন কবির, যুবমিশন আহ্বায়ক মোহেব্বুল্লাহ মেহেদী, সদস্য সচিব সৈকত চৌধুরী, ছাত্রমিশন সভাপতি সৈয়দ মো. মিলন ও সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

মন্তব্য