| প্রচ্ছদ

বগুড়ায় শত কোটি টাকায় অত্যাধুনিক ৯টি সাব-ষ্টেশন স্থাপিত হচ্ছে

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি:
পঠিত হয়েছে ১৬০ বার। প্রকাশ: ২৩ অক্টোবর ২০১৯ ।

বর্তমান সরকারের অন্যতম লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া। লক্ষ্য অর্জনে সারা দেশের ন্যায় বগুড়াতেও বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে বেশ কয়েকটি প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলেছে। এর মধ্যে আগামী বছর অক্টোবরে ৯টি সাব-ষ্টেশন স্থাপন এবং একই বছরের জুনের মধ্যে লাইন নির্মাণ ও পুনর্বাসনের কাজ সম্পন্ন হবে বলে সংশ্লিষ্ট দপ্তর সূত্রে জানাগেছে। 
বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৪৭কোটি টাকা ব্যয়ে বগুড়া বগুড়া সদরের গোদারপাড়ায় ১টি এবং মাটিডালিতে ১টি এবং শাজাহানপুর উপজেলার সুজাবাদ দহপাড়ায় ১টি অত্যাধুনিক সাব-ষ্টেশন (জিআইএস) নির্মাণ করা হচ্ছে। এগুলোর প্রতিটিতে অফিস ভবন, কনট্রোল রুম ভবন, সাব-ষ্টেশন এবং সীমানা প্রচীর নির্মান করা হবে। একই প্রকেল্পর আওতায় প্রায় ৫১ কোটি টাকা ব্যয়ে বগুড়ার শিবগঞ্জ ও শেরপুর উপজেলায় ১টি করে এবং দুপচাঁচিয়া ও আদমদিঘী উপজেলায় ২টি করে মোট ৬টি সাধারণ সাব-ষ্টেশন স্থাপিত হচ্ছে। এছাড়া নতুন লাইন নির্মাণ এবং পুরাতন লাইন পুনর্বাসনের কাজ চলছে। প্রকল্প বাস্তাবায়িত হলে বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীগণ লোড শেডিং, লো-ভোল্টেজ এবং সিষ্টেম লস এর ভোগান্তি থেকে রেহাই পাবেন। সেই সাথে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছার কাজাটি সম্পন্ন হলে গ্রামের মানুষরাও শহরের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। তাদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটবে।  
বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প বগুড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী উৎপল কুমার সাহা জানিয়েছেন, বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে বর্তমান সরকারের অন্যতম লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া। লক্ষ্য বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেণ্ট বোর্ড (পিডিবি)’র আওতাধীন বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প সারা দেশের ন্যায় বগুড়াতেও কাজ করছে। তবে উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এর মধ্যে বৈদ্যুতিক পোল ও ট্রান্সফরমার স্থাপনে স্থানীয়দের বাঁধা, নতুন লাইন নির্মাণ ও পুনবার্সনে গাছের ডালপালা কাটতে বাঁধা, সারা দেশে একযোগে কাজ শুরু হওয়ায় দক্ষ বিদ্যুৎ শ্রমিকের সংকট উল্লেখযোগ্য।    

 

মন্তব্য