| প্রচ্ছদ

বাংলাদেশকে ঘায়েল করতে যে পরিকল্পনা ভারতের

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৪ বার। প্রকাশ: ২৬ অক্টোবর ২০১৯ ।

আগে ঘরের মাঠে ভারতের প্রধান অস্ত্র ছিল স্পিন। টেস্টে বিশ্বমানের স্পিনার থাকায় উইকেট স্পিন সহায়ক বানিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করত তারা। এখন পরিস্থিতি বদলেছে। বর্তমানে ভারতের হাতে যেমন আছে বিশ্বমানের স্পিনার, তেমনি আছে ভয়ংকর পেসারও। তাই পেস সহায়ক উইকেট বানিয়ে ঘরের মাঠে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার পরিকল্পনা করছে তারা। বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন দুই টেস্টের সিরিজে পেস সহায়ক উইকেট বানিয়েছে ভারত।

ভারত সফরে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ইন্দোরে। শুরু হবে ১৪ নভেম্বর। দ্বিতীয় টেস্ট কলকাতায়। ২২ নভেম্বর ইডেনে শুরু হবে সেই টেস্ট। পেস সহায়ক উইকেট বানিয়ে দুই টেস্টের সিরিজ খেলার অপেক্ষায় আছে ভারত।

ভারতের সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কোচ রবি শাস্ত্রী বলেছেন, ‘এই যে বাংলাদেশ আসছে, দুটি টেস্টই পেসার সহায়ক উইকেটে খেলা। ইন্দোর আর কলকাতা। আমাদের আর এমন উইকেট নিয়ে চাপ নেই, কারণ দুরন্ত একটা পেস অ্যাটাক তৈরি হয়ে গিয়েছে।’

সব বিবেচনায় ভারতের পেস আক্রমণ ভয়ংকর। তা ঘরের মাঠেই হোক কিংবা বিদেশে। যথেষ্ট পেস সহায়ক উইকেট না পেলেও প্রতিপক্ষের জন্য হুমকি হয়ে ওঠার ক্ষমতা রাখেন ভারতীয় পেসাররা।

সদ্য শেষ হওয়া দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিন টেস্টের সিরিজে দুর্দান্ত বোলিং করেন মোহাম্মদ শামি ও উমেশ যাদব। উইকেট না পেলেও প্রতিপক্ষকে সমস্যায় ফেলেন ইশান্ত শর্মা। এই তিন পেসারই বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজে খেলবেন।

ভারতের সেরা পেসার জাসপ্রিত বুমরাহ ইনজুরির কারণে দলে নেই বলে তাদের পেস আক্রমণকে হালকাভাবে নেওয়ার কোনো কারণ নেই। দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট সিরিজে ভারতের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়ে ভালোভাবেই টের পেয়েছে তাদের পেসারদের কার্যকারিতা।

ঘরের মাঠে বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন টেস্ট সিরিজে ভারতীয় পেসারদের সঙ্গে তাদের সেরা দুই স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন এবং রবীন্দ্র জাদেজাও রয়েছেন। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ মিশনের শুরুতেই তাই বাংলাদেশকে পড়তে হচ্ছে সবচেয়ে বড় পরীক্ষায়।

টেস্টের আগে ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজও খেলবে বাংলাদেশ।

মন্তব্য