| প্রচ্ছদ

আইপিএল নিলামে বাংলাদেশের তিন ক্রিকেটার

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৯ বার। প্রকাশ: ০১ নভেম্বর ২০১৯ ।

টাইগারদের ভারত সফরটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই সফরে ভারতের মাঠে যারা (তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি আর দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে) প্রত্যাশার চেয়েও ভালো করতে পারবেন তাদের জন্য আইপিএলের দরজা খোলা।

ইতিমধ্যেই ভারতীয় ক্রীড়াভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ক্রিকটেকার একটি প্রতিবেদন করেছে। সেখানে বলা হয়েছে আসন্ন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) নিলামে বাংলাদেশের তিন ক্রিকেটার।

৩০ ডিসেম্বর কলকাতায় অনুষ্ঠিতব্য নিলামের তালিকায় রয়েছেন বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক ও জাতীয় দলের বর্তমান নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। তিনি জাতীয় দলের হয়ে ১৪ বছর ধরে খেলছেন। ইতিমধ্যে ৬৭ টেস্ট, ২১৬টি ওয়ানডে আর ৮১টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন।

বিপিএলে রাজশাহী কিংস, সিলেট রয়েলস এবং সবশেষ আসরে চিটাগাং ভাইকিংসের নেতৃত্ব দেয়া জাতীয় দলের এ তারকা ক্রিকেটারকে বিরাট কোহলির দল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু নিলামে নেয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে।

আইপিএল নিলামে তালিকায় আছেন জাতীয় দলের অলরাউন্ডার ও ভারত সফরে টি-টোয়েন্টি সিরিজে অধিনায়কের দায়িত্বে থাকা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। একযুগ ধরে জাতীয় দলের হয়ে খেলে যাওয়া রিয়াদ ইতিমধ্যে ৪৬ টেস্ট, ১৮৫ ওয়ানডে আর ৮০টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। শুধু তাই নয়, ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি করে দেশকে প্রথমবার কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার পেছনে বড় ভূমিকা রাখেন।

টি-টোয়েন্টি ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেটে বিপিএলে খুলনা টাইটানসের নেতৃত্ব দেয়া রিয়াদ দেশের বাইরে খেলেছেন পাকিস্তান সুপার লিগে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস এবং ক্যারিবীয়ান প্রিমিয়ার লিগে জ্যামাইকা তালাওয়াসের হয়ে। জাতীয় দলের এ তারকা ক্রিকেটারকে আসন্ন আইপিএলে দিল্লি ক্যাপিটালস নক করতে পারে।

আইপিএল নিলামে তৃতীয় বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে রয়েছেন লিটন কুমার দাস। জাতীয় দলের হয়ে ১৬ টেস্ট, ৩৩ ওয়ানডে আর ২২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। বিপিএলে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস এবং সম্প্রতি ক্যারিবীয়ান প্রিমিয়ার লিগে জ্যামাইকা তালাওয়াসের হয়ে খেলেছেন জাতীয় দলের এ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। ২৫ বছর বয়সী বাংলাদেশ দলের এ তারকা ওপেনারকে আসন্ন আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংস নিলাম থেকে দলে নিতে পারে মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন চেন্নাই।

মন্তব্য