| প্রচ্ছদ

বগুড়ায় সদ্য এমপিওভুক্ত টেকনিক্যাল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সহ ৪ পক্সি পরীক্ষার্থী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ৬ বার। প্রকাশ: ০২ নভেম্বর ২০১৯ ।

বগুড়ায় পরীক্ষা প্রক্সি দিতে গিয়ে পৌর টেকনিক্যাল স্কুল বিএম কলেজের প্রতিষ্ঠাতাসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গতকাল শনিবার বগুড়া সদরের গোকুল এলাকায় হাজী শহীদ দানেশ উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব বাদী হয়ে বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতারকৃতরা হলো,বগুড়া সদরের জয়বাংলা এলাকার বগুড়া পৌর টেকনিকাল এন্ড বিএম কলেজের প্রতিষ্ঠাতা রুহুল আমিন (৫০), শহরের জহুরুলনগর এলাকার সিফাত সরদার (২০),সৈউজগাড়ী এলাকার নাজমা খাতুনক(,১৯),ও কাহালু এলাকার নাজমুল ইসলাম (২২)। এদের মাঝে রুহুল আমিন ছাড়া অন্যরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এর শিক্ষার্থী।

বগুড়া সদর থানার এস আই নিরঞ্জন জানান, কারিগরি বোর্ডের আওতায় গতকাল শনিবার ছিলো ভোকেশনাল শাখার নবম শ্রেণীর সমাপনী পরিক্ষা। বগুড়া সদরের কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কেন্দ্র ছিলো হাজী দানেশ উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজ। বগুড়া পৌর টেকনিকাল এন্ড বিএম কলেজের কেন্দ্র ও ছিলো ওই কলেজে। পৌর টেকনিক্যাল এন্ড বিএম কলেজের পরীক্ষার্থীদের বিপরীতে ওই ৩ জন পরীক্ষা দিতে থাকে,এবং তাদেরকে কেন্দ্রে প্রবেশ করে সহায়তা করেন ওই প্রতিষ্টানের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য রুহুল আমিন ও শিক্ষক।

বিষয় টি জানার পর কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ উপজেলা নির্বাহীকে অবগত করা হলে উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা তাদেরকে আটক করে পুলিশ এ সোর্পদ করেন। সদর উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা আজিজুর রহমান বলেন,ওই বগুড়া পৌর টেকনিক্যাল কলেজের যে সব পরিক্ষার্থী দেখানো হয়েছে তার সবই ভুয়া বলে অভিযোগ পাওয়া যায়, এদের মধ্যে ম্যানেজিং কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্যসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে অন্যদের আটক করা হবে। তিনি আরো বলেন ওই প্রতিষ্ঠানটি সদ্য ঘোষিত এমপিওভুক্ত হয়েছে বলে জানতে পেরেছি আর আমি নাকি ওই কলেজের সভাপতি সেটাও আমি আজকেয় জানতে পারলাম। এদিকে যে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এদের মধ্যে যারা পক্সি পরীক্ষার্থী ছিলো তারা স্বীকার করে জানান তাদের কে টাকার বিনিময়ে পক্সি পরীক্ষা দিতে কন্ট্রাক করা হয়েছিলো। এ ঘটনায় হাজী শহীদ দানেশ স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্র সচিব আবু সুফিয়ান বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এদের মধ্যে একজন শিক্ষক পলাতক আছে। বগুড়া সদর থানার ওসি বদিউজ্জামান জানান এদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘঁটনার সঙ্গে জড়িত অন্যদেরও গ্রেফতার করা হবে।

মন্তব্য