| প্রচ্ছদ

জাবি শিক্ষার্থীদের বিকাল ৪টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৩ বার। প্রকাশ: ০৫ নভেম্বর ২০১৯ ।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের মধ্যেই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হলো। মঙ্গলবার পৌনে ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান পরিস্থিতেতে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। খবর যুগান্তর অনলাইন 

একই সঙ্গে বিকাল ৪টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, হল ভ্যাকেন্ডের সিদ্ধান্ত হয়েছে। ছেলে-মেয়ে সবারই বিকাল চারটার মধ্যে হল ছাড়তে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের নেতৃত্বে সিন্ডেকেটের জরুরি এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এর আগে অবরুদ্ধ থেকে মুক্ত হয়ে সিন্ডিকেট বৈঠক ডাকেন উপাচার্য ফারজানা ইসলাম।

এর আগে সকালে দুর্নীতির অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে চলমান আন্দোলনে হামলা করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এতে নারী শিক্ষার্থীসহ অন্তত ৩৫ আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

হামলার এক পর্যায়ে পুলিশের সামনেই আন্দোলনকারী শিক্ষদের লাঞ্ছিত করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

দুর্নীতির অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে চলমান অবরোধে টানা ১০ দিন প্রশাসনিক কার্যক্রম স্থগিত ছিল।

গতকাল সন্ধ্যা সোয়া ৭টা থেকে ভিসির বসভবন অবরোধ করে আন্দোলনকারীরা। এসময় জাবি ভিসি বাসাতেই ছিলেন।

গত ২৪ অক্টোবর থেকে সোমবার পর্যন্ত ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে আন্দোলনকারীরা টানা ১০ দিনের মতো নতুন ও পুরনো দুইটি প্রশাসনিক ভবনই অবরোধ করে রেখেছে।

ফলে এই ১০ দিন ভিসি, দুই প্রো-ভিসি, কোষাধ্যক্ষ, রেজিস্ট্রারসহ কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীই প্রশাসনিক ভবনে প্রবেশ করতে পারেননি। কার্যত অচল হয়ে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম। তবে একাডেমিক কার্যক্রম অনেকটা স্বাভাবিক ছিল।

মন্তব্য