| প্রচ্ছদ

জাবি ভিসিকে রাতের আঁধারে বোরকা পরে পালাতে হবে: মান্না

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৭ বার। প্রকাশ: ০৬ নভেম্বর ২০১৯ ।

দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে রাতের অন্ধকারে বোরকা পরে পালাতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। বুধবার দুপুর সোয়া ১২টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নাগরিক ছাত্র ঐক্য আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন। খবর যুগান্তর অনলাইন 

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, সরকার এখন বলে বেড়াচ্ছেন তারা দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করছেন। প্রকৃত শুদ্ধি অভিযান করলে প্রথমেই তো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির চাকরি যাওয়া উচিত। বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির চাকরি যায় না। অবশেষে ছাত্রদের আন্দোলনের মুখে রাতের আঁধারে তিনি পালিয়ে যান। অপেক্ষা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকেও রাতের অন্ধকারে বোরকা পরে পালাতে হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষকদের মর্যাদা আজ ভূলুণ্ঠিত। জাবি ভিসির বিরুদ্ধে অভিযোগ নতুন কিছু নয়। বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় লেখা হয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা ছাত্রলীগের মধ্যে বিলিয়েছেন। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত ভিসিরা কী ভিসি নাকি ওসি, এমন প্রশ্নও তোলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম এই শীর্ষ নেতা।

মান্না যোগ করেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ভিসি, ঠিকাদারের মতো লুটপাটের টাকা বিতরণ করেন। সেই ভিসির অধীনে শিক্ষার্থীরা কী শিক্ষা নেবে। জাবি ভিসি বলেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে মঙ্গলবার অভ্যুত্থান ঘটেছে। অভ্যুত্থানের অর্থ কী, তিনি সেটা জানেন না। অভ্যুত্থান উনি দেখেননি। তার চেয়ে বড় কথা হচ্ছে জনতার গণ-অভ্যুত্থানকে তিনি অপমান করেছেন। কয়েকটি গুণ্ডা দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্তীদেরকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি যদি বলেন এটা গণঅভ্যুত্থান হয়েছে, তাহলে এর চেয়ে বড় লজ্জার কিছু আর হয় না।’

দুর্নীতির অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগ হামলা চালিয়েছে। এতে আহত হয়েছেন নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌসসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

মন্তব্য