| প্রচ্ছদ

চলবে শনিবার পর্যন্ত

বগুড়ায় শিল্প প্রতিষ্ঠানের যন্ত্রপাতি ও উৎপাদন সরঞ্জামের প্রদর্শনী শুরু

পুণ্ড্রকথা রিপোর্ট
পঠিত হয়েছে বার। প্রকাশ: ১৪ নভেম্বর ২০১৯ ১৪:১০:৪৫ ।

বগুড়ায় শিল্প প্রতিষ্ঠানের যন্ত্রপাতি ও উৎপাদন সরঞ্জামের প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। স্থানীয় পাঁচ তারকা হোটেল মমইনের কনভেনশন সেন্টারে বৃহস্পতিবার সকালে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বগুড়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাসুদুর রহমান মিলন। তিন দিনব্যাপী প্রদর্শনী চলবে ১৬ নভেম্বর পর্যন্ত। আয়োজকরা এই প্রদর্শনীর নাম দিয়েছেন ‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল মেশিনারী অ্যান্ড ম্যানুফ্যাকচারিং ইকুইপমেন্ট এক্সপো-২০১৯’।
বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় প্রদর্শনীর উদ্বোধন করে চেম্বার সভাপতি মাসুদুর রহমান মিলন ৬০টি স্টলের সবগুলো ঘুরে দেখেন। আয়োজকরা তাকে জানান, শিল্প ও কলকারখানার মালিক বিশেষত যারা নতুন শিল্প স্থাপনে আগ্রহী তাদের জন্যই এই প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। আগামী শনিবার পর্যন্ত মেলাটি প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। 
প্রদর্শনীর সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ এক্সপো অ্যান্ড কনফারেন্সের স্বত্বাধিকারী সাখাওয়াত হোসেন জানান, একটি শিল্প স্থাপনে যেসব পণ্য এবং সরঞ্জামাদির প্রয়োজন হয় সেগুলোই প্রদর্শন করা হচ্ছে এখানে। স্টলগুলোতে বগুড়ার শোভা এন্টারপ্রাইজসহ বাংলাদেশের নামি কয়েকটি প্রতিষ্ঠান এবং ভারত, চীন, ইতালি, তাইওয়ান, কোরিয়া, জাপান ও তুরস্ক থেকে আসা বহু প্রতিষ্ঠানের যন্ত্রপাতি ও উৎপাদন সরঞ্জাম স্থান পেয়েছে। এগুলোর মধ্যে পাটকল, কাগজকল, টাইলস্, রড, ফিড মিল, ইট, সিমেন্ট, মেটাল, প্লাস্টিক সামগ্রী ও বিভিন্ন ধরনের খাদ্যপণ্য উৎপাদনকারী শিল্পের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ছাড়াও নানা ধরনের সরঞ্জামাদি যেমন- বৈদ্যুতিক জেনারেটর, ট্রান্সফরমার, কমপ্রেসার, অগ্নিনির্বাপক সরঞ্জাম, পাইপ লাইন, পানি উত্তোলনের পাম্প, ভালভ, ওয়াটার ট্রিটমেন্ট সাব স্টেশন এবং ওজন স্কেল রয়েছে।
আয়োজকদের আশা জেলা পর্যায়ে প্রথমবার আয়োজিত এ ধরনের প্রদর্শনী বগুড়া তথা উত্তরাঞ্চলে শিল্পের উন্নয়ন এবং শিল্পোদ্যোক্তা তৈরিতে ভূমিকা রাখবে। প্রদর্শনীর সমন্বয়ক সাখাওয়াত হোসেনের মতে যারা নতুন কোন শিল্প কলকারখানা শুরু করতে চান তারা এই প্রদর্শনীতে এসে সামগ্রিক একটা ধারণা পেতে পারেন।
প্রদর্শনীর উদ্বোধন করে বগুড়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাসুদুর রহমান মিলন বলেন, গেল শতাব্দীর ষাটের দশকে বগুড়া শিল্পনগরী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছিল। পরবর্তীতে নানা কারণে অনেক শিল্প বন্ধ হয়ে যায়। তবে আশার কথা হলো তরুণ উদ্যোক্তারা নতুন উদ্যমে শিল্প স্থাপনে মনোযোগী হয়েছেন। যে কারণে বগুড়ায় জুট মিল, পেপার মিল, টাইলস্ ফ্যাক্টরী, গ্লাস ফ্যাক্টরী, প্রিন্টিং ও প্যাকেজিং, ফার্মাসিউটিক্যালস্সহ নানা খাতের বহু শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এতে শিল্পনগরী বগুড়া তার হারানো গৌরব আবারও ফিরে পেয়েছে। তিনি এ ধরনের প্রদর্শনীর আয়োজনের প্রশংসা করে বলেন, যারা নতুন নতুন শিল্প স্থাপনে আগ্রহী তাদের জন্য এই প্রদর্শনী খুবই সহায়ক হবে।

মন্তব্য