| প্রচ্ছদ

নওগাঁয় বাকপ্রতিবন্ধী যুবতীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ : ধর্ষক আটক

নওগাঁ প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ১১৩ বার। প্রকাশ: ১৪ নভেম্বর ২০১৯ ।

নওগাঁর মান্দায় বাকপ্রতিবন্ধি যু্বতীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার বিকেলে মামলার পর ধর্ষক মমিনুল ইসলাম(২৫) কে আটক করেছে থানা পুলিশ। আটক মমিনুল ইসলাম উপজেলার বানিসর উত্তরপাড়া গ্রামের ফজর আলীর ছেলে।


পরিবার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী বাক প্রতিবন্ধি যুবতী(৩২) স্বামী পরিত্যক্তা। ৬ বছরের এক মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতে আলাদা থাকতেন। হঠাৎ করে গত ১০ নভেম্বর সকালে মেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এরপর জেলার নিয়ামতপুর উপজেলার পল্লী চিকিৎসক আবুল হোসেনের কাছে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। পরীক্ষার পর বিষয়টি প্রকাশ পায় ভুক্তভোগী বাক প্রতিবন্ধি সাত মাসের অন্তঃসত্তা। ভুক্তভোগীর মা তার মেয়ের কাছে জানতে চাইলে ইশারা মাধ্যমে বলে মমিনুল ইসলাম তাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দীর্ঘদিন থেকে শারীরিক সম্পর্ক করেছে। আর বিষয়টি কাউকে না বলতে নিষেধ করা হয়েছে।


ভুক্তভোগীর মা জানান, মেয়ে বাক প্রতিবন্ধী হওয়ায় বুঝা যাচ্ছে না, কত দিন থেকে সম্পর্ক। তবে অনুমান করা যায় সর্বশেষ গত ১৬ এপ্রিল বিকেল ৫টার দিকে মমিনুল ইসলাম তার বাড়িতে কিছু কাজ আছে বলে আমার মেয়েকে ডেকে নিয়ে যায়। বিয়ের প্রলোভন দিয়ে আমার মেয়ের ক্ষতি করেছে। এখন মেয়ে সাত মাসের অন্তঃসত্তা। এর ন্যায্য বিচার চাই।


মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, ঘটনায় মেয়ের মা বাদি হয়ে থানায় মমিনুল ইসলামকে আসামী করে ধর্ষণ মামলা করেছে। মামলার পর সন্ধ্যায় আসামীকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়। এছাড়া ভুক্তভোগীর শারীরিক পরীক্ষার জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালের পাঠানো হয়েছে।
 

মন্তব্য