| প্রচ্ছদ

নবান্ন উৎসবের মধ্য দিয়ে পঞ্চগড়ে যাত্রা শুরু করলো হিমালয়কন্যা থিয়েটার

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
পঠিত হয়েছে ১৮৩ বার। প্রকাশ: ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ।

পহেলা অগ্রহায়ণ বাঙ্গালী সংস্কৃতির অন্যতম লোকজ উপলক্ষ্য নবান্ন উৎসব। কৃষকের ঘরে ধান তোলাকে কেন্দ্র বাংলার গ্রাম গ্রামান্তরে পালিত হয় নবান্ন। নতুন ধানের পিঠাপুলি, ক্ষীর, পায়েশ, মুড়ির মোয়া আর খেজুরের গুড় দিয়ে চলে আপ্যায়ন। আর এই উৎসবকে ঘিরে শুক্রবার পঞ্চগড়ের বোদার বলরামহাটে হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ডের সেমিনার হলে সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করলো হিমালয়কন্যা থিয়েটার।

বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের আদর্শকে লালন করে সংগঠনটি যাত্রা শুরু করলো বলে ঘোষণা করেন সংগঠনটির কর্ণধার নাট্যকর্মী সিজুল ইসলাম। আগামীতে এই এলাকার সংস্কৃতিকে তুলে ধরে সুস্থ সংস্কৃতিচর্চা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়।

নবান্ন উৎসবকে পালন করার জন্য মেয়েরা শাড়ি আর ছেলেরা পাঞ্জাবী পরিধান করে যোগ দেয় অনুষ্ঠানে। সংগঠনের নাম ঘোষণার পর দলীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে শুরু হয় সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। দলীয় সঙ্গীতে গান পরিবেশন করেন সংগঠনের গানের প্রশিক্ষক ধনেশ চন্দ্র বর্মন, সদস্য সুকুমার চন্দ্র বর্মন, মিতু রাণী, পূজা রানী, নয়ন সরকার, সোনামণি রাণী, মোনালিসা আক্তার আইরিন, রায়হান কবির, রুমা আক্তার এবং নুরজাহান আক্তার জুলি। আবহ সঙ্গীতে সংগত করেন মুন্না কবির, অনিল চন্দ্র শর্মা, সুজন চন্দ্রন এবং সুকুমার চন্দ্র বর্মন। নাচ এবং গানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় নবান্ন উৎসবের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন নাট্যকর্মী সিজুল ইসলাম। মুড়ির মোয়া দিয়ে আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে শেষ হয় হিমালয়কন্যা থিয়েটারের নবান্ন উৎসব।

মন্তব্য