| প্রচ্ছদ

এক টেস্টে দুই ডাকের রেকর্ড মুমিনুলের

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৮৯ বার। প্রকাশ: ২৩ নভেম্বর ২০১৯ ।

'দাগ থেকে যদি দারুণ কিছু হয়, দাগই ভালো'! একটি পণ্যের বিজ্ঞাপন চিত্রে এমনই এক স্লোগন ব্যবহার করা হয়েছে। ওই স্লোগান ধরে বলা যায়, ডাক মেরে যদি অ্যালান বোর্ডার, ইয়ান বোথাম, ডি ভিলিয়ার্সদের পাশে বসা যায় তবে ডাকই ভালো! কলকাতায় ভারত-বাংলাদেশের ঐতিহাসিক দিবা-রাত্রির টেস্টে দুই ইনিংসেই ডাক মেরেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক। টেস্টের ইতিহাসে ২৪তম অধিনায়ক হিসেবে ডাক মারার রেকর্ডে নাম তুলেছেন তিনি।

টেস্টে দুই ইনিংসে ডাক মারলে তাকে 'পেয়ার' (জোড়া শূন্য) বলা হয়। আর দুই ইনিংসেই গোল্ডেন ডাক মারলে বলা হয় 'কিং পেয়ার'। মুমিনুল অবশ্য কিং পেয়ারের রেকর্ড হয়নি। তবে পেয়ারের রেকর্ড গড়েছেন। তার আগে সর্বশেষ পেয়ারের রেকর্ড গড়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসিস এবং পাকিস্তানের সদ্য সাবেক অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।

রেকর্ড অনুযায়ী, টেস্টে ১৯০২ সালে অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক জো ডারলিং দুই ইনিংসে ডাক মারেন। এরপর ওই রেকর্ডে নাম উঠেছে পাকিস্তানের অধিনায়ক ওয়াকার ইউনূস, ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোর্টলি ওয়ালস, শ্রীলংকার আতাপাতু, ইংল্যান্ডের নাসের হুসাইনদের। বাংলাদেশের অধিনায়ক হিসেবে ২০০৪ সালে জিম্বাবুয়ের হারারেতে দু্ই ইনিংসে ডাক মারেন হাবিবুল বাসার। আর মুমিনুল ডাক মারলেন কলকাতায়।

তারপরও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ঢাকা কোন অধিনায়কের দুই ইনিংসে ডাক মারার রেকর্ডের সাক্ষী হয়েছে। ১৯৬১-৬২ মৌসুমে ঢাকায় ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৎকালীন পাকিস্তান অধিনায়ক ইমতিয়াজ আহমেদ দুই ইনিংসে ডাক মারেন। ডাকের রেকর্ডের মধ্যে সরফরাজ আহমেদ ও ফ্যাফ ডু প্লেসিসের নাম আবার আলাদা করে লেখা। কারণ তারা দু'জন সেঞ্চুরিয়ানে ২০১৮ সালের ডিসম্বরে একই টেস্টে ডাক মারেন।

এক টেস্টের দুই ইনিংসেই ডাক মেরেছেন যেসব অধিনায়ক তাদের তালিকা

মন্তব্য