| প্রচ্ছদ

'বিশ্বসুন্দরী'র পোস্টার ফেসবুকে দিয়ে যা লিখলেন পরীমনি

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৮৭ বার। প্রকাশ: ২৪ নভেম্বর ২০১৯ ।

ঢালিউডের দর্শকনন্দিত নায়িকা পরীমনি অভিনীতি 'বিশ্বসুন্দরী' মুক্তি পাচ্ছে ডিসেম্বরে। ছবিটিতে পরীর বিপরীতে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক সিয়াম আহমেদ। চলচ্চিত্রটি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আলোচনায় পরীমনি। সিয়ামের সঙ্গে তার রসায়ন দেখার অপেক্ষায় দর্শক।

বিশ্বসুন্দরীর নতুন পোস্টার প্রকাশ পেয়েছে শনিবার বিকালে। নিজের ফেসবুক পেজে সেই পোস্টার দিয়েছেন নায়িকা পরীমনি। নিজের অনুসারীদের সেই পোস্টার দেখিয়ে কিছু মন্তব্য করেছেন পরীমনি। সেটি এরই মধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে। খবর যুগান্তর অনলাইন 

পরীমনি লিখেছেন- ‘মন ভালো করা শব্দগুলো আজ নীরবে হইচই করছে। একবার শুধু অস্ফুট স্বরে বলেছে- ভালোবাসি। এর পর থেকে আমি শুধু চোখ মেলে তাকিয়ে আছি...!

আচ্ছা শোভা, এই অসহ্য সুখের নাম কী? এই যন্ত্রণার পরিণামও-বা কি?’

কবিতার পঙ্‌তির মতো কথাগুলো নিজের ফেসবুক পেজে লিখে আলোচনায় পরীমনি। এখানে দারুণ রোমান্টিক মনের পরীমনিকে খুঁজে পেয়েছে দর্শক।

এর আগে আরেকটি পোস্টার প্রকাশ পেয়েছিল ‘বিশ্বসুন্দরী’ চলচ্চিত্রের। সেটিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সাড়া ফেলেছিল। এই পোস্টারে দেখা যায় সিয়ামের পেছনে আয়নার সামনে বিষণ্ন পরীমনিকে। নতুন পোস্টারে পরীমনিকে বেশ রোমান্টিক ও প্রাণবন্ত মনে হচ্ছে।

বিশ্বসুন্দরী চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করছেন চয়নিকা চৌধুরী। এটি তার প্রথম চলচ্চিত্র। এতে প্রথমবারের মতো জুটি বেঁধেছেন পরী ও সিয়াম। ইতিমধ্যে সিনেমাটির শুটিং শেষ হয়েছে। ডাবিংয়ের কাজ হয়েছে। ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে ছবির একটি গানও।

সবকিছু ঠিক থাকলে ১৩ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে ছবিটি। সিয়াম-পরী ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন আলমগীর, চম্পা, মনিরা মিঠু, আনন্দ খালেদ, হীরা, খালেদ হোসেন সুজন, সীমান্ত প্রমুখ।

‘বিশ্বসুন্দরী’ ছবির গল্প নিয়ে নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী বলেন, বিশ্বসুন্দরীর গল্প প্রেমের, এই গল্প মানবতার, এই গল্প জীবনের জয়গানের। সৌন্দর্য যে শুধু বাহ্যিক নয়, সৌন্দর্য হতে পারে মন-মননের, তা শক্তিশালী একটি চিত্রনাট্যের মাধ্যমে এই গল্পে ফুটে উঠেছে। আশা করছি, দারুণ এই গল্পকে আমি আমার দীর্ঘ নির্মাণজীবনের অভিজ্ঞতা দিয়ে চলচ্চিত্রে রঙ ছড়াতে পারব।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে নিজের চলচ্চিত্রের নাম ঘোষণা দেন পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী। প্রথম চলচ্চিত্রের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি চেয়েছি এমন একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে, যা সব শ্রেণির দর্শকের মন ছুঁয়ে যাবে। দর্শক হাসবেন, কাঁদবেন, প্রেমের অনুভূতিতে ভাসবেন। আশা করি বিশ্বসুন্দরী দেখে দর্শক তার প্রত্যাশার সব পাবেন।

মন্তব্য