| প্রচ্ছদ

জয়ার সঙ্গে প্রসেনজিতের যত কাকতালীয়

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫৩ বার। প্রকাশ: ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ।

বড় দিনে কলকাতার রেডিও মির্চির বিশেষ শো। সঞ্চালক মীর আফসার আলী পরেছিলেন লাল রঙের জ্যাকেট। যা দেখে সান্টা ক্লজকে মনে পড়বে যে করো। বড়দিন হিসেবে যথাযথ সাজ।

কিন্তু তার শো’র দুই অতিথির পোশাকে এত মিল কেন? সেই প্রশ্ন মীরের। এমনকি দুই অতিথি জয়া আহসান ও প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়েরও।

বুধবার বিকেলে ‘রবিবার’ সিনেমার প্রচারণায় রেডিও স্টেশনে এসেছিলেন দুই তারকা। তাদের পরনে ছিল নীল রঙের পোশাক। 

জবাবে জয়া ও প্রসেনজিৎ জানালেন, কাকতালীয়ভাবেই নাকি মিলে গেছে পোশাকের রং। শুধু এ দিনই প্রথম নয়, অতনু ঘোষের ছবির শুরু থেকে তারা এটি লক্ষ্য করেছেন। এমন না যে পরিকল্পনা করে তারা একই রঙের পোশাক পরেছেন।

প্রসেনজিৎ বলেন, “এই ছবির কাজ যখন থেকে শুরু হয়েছে তখন থেকেই কাকতালীয়ভাবে পোশাক মিলে যায়। আজও তেমনটাই ঘটেছে।”

শুক্রবার ভারতে ও পরে বাংলাদেশে মুক্তি পাবে প্রসেনজিৎ-জয়ার এই ছবি। জুটি হিসেবে প্রথম হওয়ায় পরম্পরের প্রতি মুগ্ধতা ঝরে পড়ছিল কথায় কথায়। বিশেষ করে প্রসেনজিতের সঙ্গে অভিনয়ের সুযোগকে বড় মুখ করে জানাচ্ছিলেন জয়া।

মজার বিষয় হলো, বুধবার প্রথমবারের মতো দীর্ঘ ১২ ঘণ্টা টানা শো করছেন মীর। আর জয়া-প্রসেনজিৎ জানালেন ‘রবিবার’-এর গল্পটাও ১২ ঘণ্টার।  প্রসেনজিৎ বলেন, “অসীম ও সায়নীর গল্প নিয়ে এই ছবি। এক রবিবারে একটি রেস্টুরেন্টে দেখা হয় তাদের। প্রায় ১৫ বছর আগের পরিচয় তাদের। হঠাৎ এক রবিবার তাদের দেখা হয়। এরপর তারা ১২ ঘণ্টা এক সঙ্গে কাটায়। কেন ১২ ঘণ্টা একসঙ্গে থাকে তারা এর কারণ জানা যাবে সিনেমায়।”

জয়ার মতে, দুই সাবেক নিয়ে ‘রবিবার’-এর পুরো গল্প। তাই দর্শককে দুইবার করে দেখতে বললেন। একবার বর্তমান সঙ্গীর সঙ্গে প্রকাশ্যে, আরেকবার সবাইকে লুকিয়ে সাবেকের সঙ্গে।

মন্তব্য