| প্রচ্ছদ

স্কুল থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল আমাকে: সালমান

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৬৬ বার। প্রকাশ: ২৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ।

গত শুক্রবার থেকে ভারতের সবকটি রাজ্যে বহু প্রেক্ষাগৃহে চলছে বলিউড ভাইজান সালমান খানের সুপারডুপার হিট সিনেমা দাবাংয়ের সিকুয়েল ‘দাবাং থ্রি’।

সালমান মানেই ব্লকবাস্টার হিট। তবে ‘দাবাং থ্রির আগের পর্বগুলোর মতো সাড়া ফেলছে না বলে দাবি করছেন সিনেক্রিটিকরা। অনেকে ভিন্নমতও দিচ্ছেন। যাই হোক সিনেমাটিকে ঘিরে যখন সিনেপ্রেমীরা বুঁদ, তখন সালমান নিয়ে জানা গেল বিস্ফোরক এক কথা।

স্কুল থেকে নাকি সালমানকে প্রায়ই বের করে দেয়া হতো বিশেষ একটি কারণে। হাসির ছলে এমনটি জানালেন সালমান খান নিজেই।

সম্প্রতি ভারতে জনপ্রিয় টিভি শো ‘দ্য তারা শর্মা শোয়ের’ প্রথম সিরিজে অতিথি হয়ে হাজির হন সালমান।

সেখানে আড্ডার মাঝে অকপটেই সেই কথা স্বীকার করলেন সালমান। তবে কেন তাকে স্কুল থেকে বের করে দেয়া হতো প্রথম দিকে এ বিষয়ে নাকি কোনো ধারণাই ছিল না সালমানের।

অনুষ্ঠানে সালমান জানান, আমি তো এখনও আগের মতোই বেয়াড়া আছি। যখন যা ভাল্লাগে তাই করি। মানুষ কি বলবে সে পরোয়া করি না।

তিনি জানান, তার এমন চরিত্রের কারণে ছোটবেলায় তাকে নিয়ন্ত্রণ করতে বেশ বেগ পেতে হতো বাবা-মায়ের। সেই একই স্বভাব এখনও রয়ে গেছে। তাকে নিয়ন্ত্রণ করা এখনও আগের মতোই কঠিন বলে মনে করেন সালমান।

এসব বলতে বলতে নিজের ছেলেবেলায় ফিরে যান সালমান। নস্টালজিক হয়ে ওঠেন। এ সময় তিনি বলেন, আমি এতটাই বেয়াড়া ছিলাম যে, চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ার সময় আমাকে স্কুল থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল। এমনটি প্রায়ই হতো।

তিনি বলেন, ওটা আমার নতুন স্কুল ছিল। আমার আগের স্কুলের অনুরোধে বাবা-মা আমাকে এই স্কুলে ভর্তি করিয়ে দেয়। এর পর নতুন স্কুলের কর্তৃপক্ষ আমার দুরন্তপনা দেখে ফের আগের স্কুলকে ফিরিয়ে নিতে অনুরোধ করে।

সালমান বলেন, একদিন ক্লাস চলাকালীন আমাকে বাইরে দেখতে পেয়ে যান বাবা। বাবা ভীষণ রেগে যান। ওই ঘটনার পর বাবা আমাকে আবার আগের স্কুলে ভর্তি করান।

শৈশবের সেই স্কুল থেকে শাস্তি পাওয়া সালমান আজ ভারতের রুপালি পর্দার সেরা তারকা।

প্রসঙ্গত সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত সালমানের দাবাং থ্রি ইতিমধ্যে শতকোটি ক্লাবে নাম লিখিয়েছে। প্রভু দেবা পরিচালিত ছবিতে সালমানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন দাবাংয়ের নিয়মিত অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা।

মন্তব্য