| প্রচ্ছদ

নওগাঁয় ১১ উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণে সরকার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে- মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী

নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৩৬ বার। প্রকাশ: ২৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট, সঠিক ইতিহাস এবং সারাদেশে ছড়িয়ে থাকা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসমূহ  সংরক্ষণ করে আগামী প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে না পারলে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস মুছে যাবে। আর ইতিহাস মুছে গেলে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তি লাভবান হবে। তারা জযী হবে। দেশের স্বাধীনতা ভুলুন্ঠিত হবে। তাই মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী বর্তমান সরকার সারাদেশের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি, বড় বড় যুদ্ধের স্থানসমূহ, গণহত্যা  এবং বধ্যভুমি সমূহে একই ডিজাইনে স্মৃতিসৌধ নির্মানের পরিকল্পনা গ্রহন করা করেছে।
বৃহষ্পতিবার দুপুরে নওগাঁ সদর উপজেলা পরিষদ মিনায়তনে জেলার ১১টি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন সমূহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

নওগাঁ’র জেলা প্রশাসক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহবায়ক মোঃ হারুন-অর-রশীদের সভাপতিত্বে আয়োজিত  মতবিনিময় বক্তব্য রাাখেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি, জাতীয় সংসদের বিদ্যুৎ জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোঃ শহিদুজ্জামান সরকার এমপি, মোঃ ছলিম উদ্দিন তরফদার এমপি, নওগাঁ’র পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মান প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মোঃ আব্দুল হাকিম এবং নওগাঁ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোঃ হারুন-অল-রশীদ। 
বর্তমান সরকার কর্ত্তৃক দেয়া মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সরকারের দেয়া সর্বোচ্চ মর্যাদার কথা উল্লেখ করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেছেন মুক্তিযোদ্ধাদের সন্মানী ভাতা আরও বৃদ্ধি করা, বিজয় দিবস ভাতা এবং উৎসব ভাতা প্রদানের পকিল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। তা অবিলম্বে বাস্তবায়িত হবে। মন্ত্রী দেশের ব্যাপক উন্নয়ন কার্যক্রমের কথা উল্লেখ করে বলেন আওয়ামীলীগ স্বাধীনতার এই ৪৮ বছরে মাত্র ১৯ বছর ক্ষমতায় রয়েছে। এই ১৯ বছরে দেশের শতকরা ৮০ ভাগ উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। অথচ বিএনপি জামাত জোট ও অন্যান্যরা ৩০ বছর এ দেশের রাষ্ট্র ক্ষমতায় ছিল। তারা এই দীর্ঘ ৩০ বছরে মাত্র ২০ ভাগ উন্নয়ন সাধন করেছে।
তিনি আরও বলেছেন মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট এবং মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে আগামী প্রজন্মের মধ্যে সম্যক ধারনা দিতে আগামী বিসিএস পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে প্রশ্নপত্র তৈরী করা হবে। এর মধ্যে ৫০ নম্বর নির্ধারিত থাকবে ১৯৭১ সালে সংঘটিত  ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধকে কেন্দ্র করে। 
মন্ত্রী বলেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ধাপে ধাপে মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট সৃষ্টি করেছিলেন। অবশেষে ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে স্বাধীনতার চুড়ান্ত আহবান জানিয়েছিলেন। তাঁর ডাকেই এ দেশের অকুতোভয় বাঙালীরা  অস্ত্র হাতে পাকিস্তানীদের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করেছিলেন। 

 

মন্তব্য