| প্রচ্ছদ

ফাঁকা অফিসে ডেকে নায়িকাকে কুপ্রস্তাব পরিচালকের

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৩ বার। প্রকাশ: ১২ জানুয়ারী ২০২০ ।

ভারতের বাংলা ছবির নামকরা পরিচালক অরিন্দম শীলের বিরুদ্ধে ‘মি-টু’র অভিযোগ তুলেছেন রূপাঞ্জনা মিত্র।

রূপাঞ্জনা ভারতীয় সাংবাদিকদের বলেন, ‘সেই পরিচালক প্রযোজিত ভূমিকন্যাতে কাজ করেছিলাম। কাজ শুরুর দিকে আমাকে একদিন তার অফিসে স্ক্রিপ্ট শোনানোর নাম করে ডেকে পাঠান। অফিসে পৌঁছে দেখি, পুরো অফিস খালি, কেউ নেই।’

‘তারপরই পরিচালক আমার সঙ্গে অশালীন আচরণসহ ইঙ্গিতপূর্ণ হাবভাব করেন। আমি বেশ ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। এত বছর ইন্ডাস্ট্রিতে থাকার পর এমন বাজে প্রস্তাব আসতে পারে ভাবতে পারিনি। সেদিন মনের জোরে ঘর থেকে বেরিয়ে এসেছিলাম।’

‘ওই সময় তার স্ত্রীও এসে পড়েন। আমি প্রস্তাবে রাজি হইনি বলে আমার ফোটোশুট হলেও, ভূমিকন্যার পোস্টার থেকে আমাকে বাদ দেওয়া হয়।

টলিউডের পরিচিত এই নায়িকার অভিযোগ, ‘এই পরিচালকই সাত-আট বছর আগে আমার এক বান্ধবীকেও (সেও পরদার পরিচিত মুখ) অশালীন প্রস্তাব দেন। আমার বান্ধবী আর্টিস্ট ফোরামে অভিযোগও করেছিল। ’

এতদিন বাদে মুখ খোলার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘ঘটনাটার এক বছর কেটে গেছে। তখন মুখ খুলিনি কারণ আমি ওই বেসরকারি চ্যানেলটির সঙ্গে কনট্র্যাক্টে ছিলাম। তাহলে চ্যানেলটির নাম খামোকা জড়িয়ে যেত। দ্বিতীয়ত, মানসিকভাবে এতটাই ভেঙে পড়েছিলাম যে, ভেবে পাচ্ছিলাম না কী করব! ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছিলাম। এখন মনে হল এই সব মানুষের মুখোশ খুলে দেওয়া দরকার। আজ আমাকে প্রস্তাব দিয়েছে। কাল নতুন কোনও মেয়েকে একই প্রস্তাব দেবে।’

অরিন্দম শীল ২০১৩ সাল থেকে পরিচালনায় নিয়মিত হন। আবর্ত (২০১৩), এবার শবর (২০১৫), হর হর ব্যোমকেশ (২০১৫), স্বাদে আহ্লাদেসহ (২০১৫) বেশ কয়েকটি ছবি পরিচালনা করেছেন।

মন্তব্য