| প্রচ্ছদ

হাতে ১৪ সেলাই নিয়েও খেলতে চান মাশরাফি

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৯ বার। প্রকাশ: ১২ জানুয়ারী ২০২০ ।

মাঠ ছাড়তে হয়েছে রক্তাক্ত হাত নিয়ে। বাঁ হাতের তালুতে পড়েছে ১৪টি সেলাই। তবুও মাশরাফি বিন মুর্তজা খেলতে চান আগামীকাল শেষ চারে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি।

খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে গতকাল রাতে মেহেদী হাসানের করা ১১তম ওভারে রাইলি রুশোর ক্যাচটা কাভারে ঝাঁপিয়ে তালুবন্দী করতে চেয়েছিলেন মাশরাফি। ক্যাচ হাতে জমাতে পারেননি, উল্টো বাঁ হাতের তালুতে অনেকখানি কেটে গেছে ঢাকা প্লাটুন অধিনায়কের। রক্তাক্ত হাতেই তাঁকে মাঠ থেকে বেরিয়ে আসতে হয়। রাতে হাতে ১৪ সেলাই দেওয়ার সময়ই মাশরাফি নাকি জোরালো কণ্ঠে বলেছেন, ‘পরের ম্যাচটা খেলতে চাই!’

 

মারাত্মক চোট পাওয়ার পরও মাশরাফির খেলার আগ্রহ নিয়ে ঢাকার ম্যানেজার আহসানউল্লাহ হাসান আজ সকালে বললেন, ‘সে খেলতে ভীষণ ইচ্ছুক। আমরা বুঝতে পারছি না কী করব। দৃঢ় মনোবলে সে বলছে, খেলবে। জানেনই তো মাশরাফি একজন লড়াকু মানুষ। এখন বিষয়টি তার ওপর ছেড়ে দিয়েছি।’

মাশরাফি চাইলেও চিকিৎসকদের পরামর্শ, এই মুহূর্তে বিশ্রামে থাকাই ভালো। এ ধরনের চোট থেকে সেরে উঠতে সাত দিনের বেশি সময় লাগে। তিন দিন কিছুই না করার পরামর্শ থাকে চিকিৎসকদের। কিন্তু মাশরাফি কাল বারবার জানিয়েছেন হাতে সেলাই নিয়েই খেলতে চান। ঢাকা অধিনায়ক যদি শেষ পর্যন্ত অনড় থাকেন নিজের সিদ্ধান্তে, খেলাটা ঝুঁকির হলেও শেষ পর্যন্ত চিকিৎসকদের বিকল্প ব্যবস্থা করতে হবে।

বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী মাশরাফির খেলা-না খেলা নিয়ে প্রথম আলোকে বললেন, ‘যেহেতু সেলাই পড়েছে সাধারণত সাত দিন সময় নিতেই হয়। অনেক সময় খেলা যায়, গুরুত্বপূর্ণ খেলা থাকলে আমরা ব্যবস্থা নিই। তবে সেরে উঠতে সাত দিনের বেশি লাগে। অনেক সময় কেউ কেউ ঝুঁকি নেয়। আমরা সেই অনুমতি দিইও। কিন্তু আমরা তো চাইব সে আগামী তিন দিন যেন কিছু না করুক। তারপরও যদি বলে খেলব, খেলার ব্যবস্থা করে দেব।’

মন্তব্য