| প্রচ্ছদ

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চান ডি ভিলিয়ার্স

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৬ বার। প্রকাশ: ১৪ জানুয়ারী ২০২০ ।

প্রথমে শোনা গিয়েছিল, টেস্ট থেকে অবসর নিতে যাচ্ছেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু ২০১৮ সালের মে মাসে এক ভিডিও বার্তায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব সংস্করণকেই বিদায় বলে দেন তিনি। তবে সম্প্রতি ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার শীর্ষ পদে পরিবর্তন আসার পর থেকে ডি ভিলিয়ার্সের ফেরার গুঞ্জন উঠেছে। এবার সাবেক প্রোটিয়া অধিনায়ক নিজেই শোনালেন অবসর ভেঙে দক্ষিণ আফ্রিকার জার্সি গায়ে জড়ানোর ইচ্ছের কথা।

আজ (মঙ্গলবার) বিগ ব্যাশে অভিষেক হয়েছে ডি ভিলিয়ার্সের। অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সের বিপক্ষে ৩২ বলে ৪০ রান করে ভূমিকা রেখেছেন ব্রিসবেন হিটের ৭ উইকেটের জয়ে। ম্যাচের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ইচ্ছের কথা শুনিয়েছেন তিনি। আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে চোখ রাখছেন ‘৩৬০ ডিগ্রি’ ব্যাটসম্যান।

৩৫ বছর বয়সী ডি ভিলিয়ার্সের বক্তব্য, “বিষয়টি (আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা) সত্যি হতে অনেক কিছু করতে হবে। আমি (জাতীয় দলে) ফিরতে চাই। এ ব্যাপারে ‘বাউচ’ (দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন কোচ মার্ক বাউচার), (নতুন ডিরেক্টর অব ক্রিকেট) গ্রায়েম স্মিথ এবং (অধিনায়ক) ফাফ ডু প্লেসির সঙ্গে আমার কথা হচ্ছে। আমরা সবাই মিলে (ফেরার) কাজটা করতে চাই।”

তবে চাইলেই যে হয়ে যাবে, বিষয়টা এমন নয়। বাস্তবতা ভালো করেই বোঝেন ডি ভিলিয়ার্স, ‘এখনও অনেক দূরের পথ। অনেক কিছু করতে হবে- সামনে আইপিএল আছে, এই সময়টায় নিজের ফর্ম ধরে রাখতে হবে আমাকে। আশা করছি সব ঠিকঠাকই হবে।’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘আমি আবারও বলছি, কোনও কিছুই নিশ্চিত নয়। নিজেকে কিংবা অন্যকে হতাশ করতে চাই না। এ মুহূর্তে আমি শুধু চেষ্টা করে যাব এবং নিজের সেরা ক্রিকেট খেলার চেষ্টা করব। দেখা যাক বছরের শেষে কী হয়।’

২০১৮ সালের মাঝামাঝি অবসর ঘোষণার সময় ডি ভিলিয়ার্স জানিয়েছিলেন, ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে যেন দক্ষিণ আফ্রিকা দল গুছিয়ে নিতে পারে, সেজন্য আগেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। যদিও ইংল্যান্ড-ওয়েলসে প্রোটিয়াদের ভরাডুবির পর জানা যায়, ডি ভিলিয়ার্স বিশ্বকাপের দলে থাকতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা ‘না’ বলে দিয়েছিল তাকে।

তবে দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে নতুন নেতৃত্ব আসার পর শুরু হয়েছে ডি ভিলিয়ার্সের ফেরার গুঞ্জন। নতুন কোচ বাউচার আগেই জানিয়েছেন, ডি ভিলিয়ার্সের সঙ্গে কথা বলছেন তারা। অধিনায়ক ডু প্লেসিও শুনিয়েছেন একই কথা। সাবেক সতীর্থরা গুরুত্বপূর্ণ পদে বসায় ডি ভিলিয়ার্স নিজেও আশাবাদী হয়ে উঠেছেন, ‘তারা সবাই আমার বন্ধু, তাদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক আঙিনায় আমি ১০ বছরের বেশি ক্রিকেট খেলেছি। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করাও আমার জন্য সহজ।’

বাউচার-ডু প্লেসির পর ডি ভিলিয়ার্স নিজেও জানালেন অবসর ভেঙে জাতীয় দলে ফেরার ইচ্ছের কথা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আবার ‘মিস্টার ৩৬০ ডিগ্রি’র ব্যাটিং দেখার সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে তাতে। আর দৃষ্টিটা যখন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দিকে, তখন প্রাপ্তিটা বেশি হওয়ারই কথা ক্রিকেটপ্রেমীদের।  

মন্তব্য