| প্রচ্ছদ

বিকেলে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশের বাঁচা-মরার ম্যাচ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৯ বার। প্রকাশ: ১৯ জানুয়ারী ২০২০ ।

জিতলে সেমিফাইনাল; হারলে বিদায়। এমন সমীকরণ সামনে রেখে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে রোববার বিকেল ৫টায় ‘এ’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হবে দল দুটি। শেষ চারের টিকেট পেতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা দুই দলেরই চাই জয়। গ্রুপ সেরা হয়ে এরই মধ্যে সেমি-ফাইনালে উঠেছে ফিলিস্তিন।

ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কাকে টপকে সেমিফাইনালে উঠতে না পারলে বাংলাদেশের জন্য সেটা হবে বিপর্যয়। এমন ম্যাচের আগে বাংলাদেশ ফুটবলের সবচেয়ে বড় তারকা জামাল ভুঁইয়া খেলা নিয়েও তৈরি হয়েছে সংশয়।

বাম পায়ের উরুতে ব্যথা নিয়ে ম্যাচের আগের দিন অনুশীলন করেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তার খেলা না খেলা কোচ ছেড়ে দিয়েছেন জামালের ওপরেই। আর জামাল নিজে বলছেন তার খেলার সম্ভাবনা ‘৭৫ শতাংশ’।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলার আভাস দিয়েছেন বাংলাদেশের কোচ জেমি ডে। ইঙ্গিত দিয়েছেন দুই ফরোয়ার্ড খেলানোর। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ভারতের বিপক্ষে গোল করা সাদউদ্দিনের সঙ্গে মতিন মিয়া বা মাহবুবুর রহমান সুফিলকে রেখে আক্রমণভাগ সাজাতে পারেন ডে।

“একাদশে পরিবর্তন আসতে পারে। সেটি হবে আক্রমণাত্মক ফুটবলের স্বার্থে। ফরোয়ার্ড লাইনে সাদ-সুফিল-মতিনরা খেলতে পারে। সুযোগ তাদের সামনে আসবে, কাজে লাগানোর দায়িত্ব তাদের। শুধু স্ট্রাইকার নয়, মাঝমাঠের খেলোয়াড়দেরও গোলের জন্য ঝাঁপাতে হবে।”

পরিসংখ্যানের পাতায় শ্রীলঙ্কার চেয়ে ঢের এগিয়ে বাংলাদেশ। দুই দলের ১৭ বারের মুখোমুখি লড়াইয়ে বাংলাদেশের জয় ১১টি, শ্রীলঙ্কার ৪টি। বাকি দুই ম্যাচ ড্র। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়েও প্রতিপক্ষের চেয়ে ১৮ ধাপ এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। গত দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে ব্রোঞ্জ জেতার পথে ডের দল একমাত্র জয়টিও পেয়েছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

মন্তব্য