| প্রচ্ছদ

বেঙ্গালুরুতে বস্তি গুঁড়িয়ে দেওয়ার পর ৩ ‘বাংলাদেশি’ গ্রেপ্তার

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৫ বার। প্রকাশ: ২২ জানুয়ারী ২০২০ ।

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্নাটকের রাজধানী বেঙ্গালুরুতে নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে না পারায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা ‘বাংলাদেশি অভিবাসী’ বলে দাবি করেছে পুলিশ।

এর আগে ‘অবৈধ বাংলাদেশিদের বস্তি’ সন্দেহে প্রায় দুইশ’ বস্তিঘর গুঁড়িয়ে দিয়েছে সেখানকার পুলিশ ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার দক্ষিণ বেঙ্গালুরুর হোয়াইটফিল্ডের কাছে মুন্নেকোলালা থেকে গ্রেপ্তার তিনজন হলেন- সোনালি গাজীর ছেলে মোহাম্মদ লোকমান (৫৫), তার স্ত্রী জেসমিন বেগম (৩৫) এবং তাদের ছেলে রাসেল। তাদের বাড়ি বাংলাদেশের পিরোজপুর জেলা বলে জানিয়েছে পুলিশ।

হোয়াইটফিল্ডের উপ-পুলিশ কমিশনার এমএন আনুচেথ দ্য হিন্দুকে বলেছেন, গ্রেপ্তার তিনজন বাংলাদেশি বলে স্বীকার করেছেন। তারা নিজেদের ভারতীয় প্রমাণে কোনো পরিচয়পত্র দেখাতে পারেননি। তাদের কাছে বাংলাদেশি পরিচয়পত্র এবং জন্মনিবন্ধন সনদ পাওয়া গেছে।

তবে ভারতীয় মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, পুলিশ উচ্ছেদ অভিযানে যাদের বাড়িঘর ভেঙে দিয়েছে, তারা সবাই ভারতের নাগরিক। তাদের কাছে এ দেশের বৈধ পরিচয়পত্রও আছে।

তাদের আরও অভিযোগ, শহরের বিজেপি বিধায়ক অরবিন্দ লিম্বাভালি-ই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তথাকথিত অবৈধ বাংলাদেশিদের বিরুদ্ধে লাগাতার উসকানিমূলক পোস্ট দিয়ে চলেছেন। আর তার ভিত্তিতেই পুলিশ বাংলাভাষী মুসলিমদের বিরুদ্ধে নির্বিচারে এই অভিযান শুরু করেছে।

বিবিসি বাংলা জানায়, বেঙ্গালুরুর বেলান্ডার শহরতলিসহ আরও কয়েকটি জায়গায় তথাকথিত অবৈধ বাংলাদেশিদের বিরুদ্ধে এই অভিযান শুরু হয় শনিবার রাতে। দফায় দফায় তা চলতে থাকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টা ধরে।

মন্তব্য