| প্রচ্ছদ

অপহরণ করে ৩৫ লাখ টাকা দাবিঃ বগুড়ায় ২ নারীসহ গ্রেফতার ৩

অরুপ রতন শীল
পঠিত হয়েছে ১১৮০ বার। প্রকাশ: ২৯ জানুয়ারী ২০২০ ।

বগুড়ায় অপহরণ চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার সকাল ৮টার দিকে বনানী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার হওয়া অপহরণ চক্রের সদস্যরা হলো, জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর উপজেলার আলী মামুদপুর এলাকার ইসহাক আলীর ছেলে জনি(২৫) ও তার স্ত্রী সুমাইয়া আকতার(১৯) এবং বগুড়ার ধুনট উপজেলার সরুগ্রামের আব্দুল মাজেদের মেয়ে সাদিয়া আকতার(২৪)। জনি তার স্ত্রীকে নিয়ে বনানীর র‍্যাব ক্যাম্পের পিছনে ভাড়া বাসায়  থাকতো। সেই সাথে সাদিয়া ও সুমাইয়া সম্পর্কে খালাতো বোন বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

 
পুলিশ আরও জানায়, জনি ও সুমাইয়া দম্পতির কাজই হলো বিভিন্ন মানুষের সাথে আত্মীয়তার সম্পর্ক গড়ে তোলা এবং বিভিন্ন কৌশলে ফাঁদে ফেলে টাকা আদায় করা। সেই রেশ ধরেই গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিপুর এলাকার সেকেন্দার আলীর ছেলে শাহজাহানের(৩৯) সাথে আত্মীয়তার সম্পর্ক তৈরী করে তারা।

 
গত ২৭ জানুয়ারী সন্ধ্যার দিকে জনি ও সুমাইয়া বারপুর এলাকা থেকে শাহজাহানকে সাতমাথায় আসতে ফোনে জানায়। শাহজাহান এলে তাকে নিয়ে মুন্না চাপ ঘরের দিকে যাওয়ার কথা বলে তারা সিএনজিতে উঠে। পরে সেখানে না নেমে জোর করে তারা শাহজাহানকে তাদের  বনানীর ভাড়া বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে শাহজাহানকে মারপিট এবং ঠান্ডা পানি ঢেলে নির্যাতন। সেই সাথে উলঙ্গ করে ছবি তোলে সাদিয়া। পরে এই ছবি ইন্টারনেটসহ বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে দেয়ার কথা বলে ৩৫ লাখ টাকা ইসলামী ব্যাংকে একটি একাউন্টে পাঠানোর জন্য শাহজাহানের পরিবারের নিকট দাবি করে। শাহজাহানের বাবা বিষয়টি জানা মাত্র দ্রুত সদর থানায় যোগাযোগ করে।


এই বিষয়ে সদর থানার এসআই সোহেল রানা বলেন, আমরা অভিযোগ পাওয়া মাত্র অপহরণকারীদের গ্রেফতারে কাজ শুরু দেই। তাদের মোবাইল নম্বর এবং ব্যাংকের হিসাব নম্বর ট্রাকিং করে বনানীর ভাড়া বাসা থেকে বুধবার সকালে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই।


তিনি আরও বলেন, গ্রেফতার হওয়া প্রতারকদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। 
 

মন্তব্য