| প্রচ্ছদ

নওগাঁয় ঋণ থেকে মুক্তি পেতে নিজ দোকানেই চুরি

নওগাঁ (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৫৯ বার। প্রকাশ: ৩০ জানুয়ারী ২০২০ ।

নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার আমাইতাড়া বাজারের উমর জুয়েলার্স নামে এক স্বর্ণের দোকানে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটে। তবে চুরি নয় ঋণের দায় থেকে মুক্তি পেতে নিজ দোকানেই চুরির নাটক সাজিয়েছে ওই দোকানের মালিক মোকারম হোসেন।

বুধবার বিকালে পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) রকিবুল আকতার এই তথ্য জানান। মাত্র ৪৮ ঘন্টার ব্যবধানে এই চুরির রহস্য উদঘাটন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, স্বর্ণের দোকানে চুরির খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সালেহ আশরাফুল আলম, এএসপি প্রবেশনাল আসাদুজ্জামান শাকিল এবং থানার অফিসার ইনচার্জ শামিম হোসেন সরদার্সহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়। এসময় দেখা যায় দোকান ঘরের সামনের দরজায় তালাবদ্ধ এবং পেছনের দরজায় তালা দোকানের ভেতর পাশ থেকে কাটা হয়েছে। দোকান ঘরের ভিতর লোহার সিন্দুক চাবি দিয়ে খোলার পর সিন্দুকের এক পাশ থেকে হাতুড়ী দিয়ে পিটিয়ে চুরির ঘটনা প্রমাণের চেষ্টা করা হয়েছে। বিষয়টি সন্দেহ হলে দোকানের মালিক, মোকারম হোসেন ও তার স্ত্রী মৌসুমী আকতার ও দোকান কর্মচারী টিটুকে  জিজ্ঞাসাবাদে একর্পর্যায় বেরিয়ে আসে চুরির প্রকৃত রহস্য।

দোকান মালিক মোকারম হোসেন ওরফে উজ্জল ঋণগ্রস্থ ছিল। তিনি তার বড় ভাই আতোয়ার হোসেন, তার স্ত্রী মৌসুমী আকতার ও দোকানের কর্মচারী টিটু ঋণগ্রস্থতার কারণে প্রতারনামুলক এই চুরির নাটক সাজান। তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক তার বাড়ীর শয়ন কক্ষ থেকে চোরাই স্বর্নালংকার, রুপার গহনাসহ নগদ ৪ হাজার ৪০০ টাকা উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায ওই ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দাযের করে তাদের জেলা হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

সোমবার রাতের কোন এসময় চোরেরা দোকানের পিছনের ছোট একটি লোহার সীটের দরজা কেটে দোকান ঘরে প্রবেশ করে দোকানে রক্ষিত সিঁন্দুকের পাল্লা কেটে প্রায় ৩৫ ভরি সোনার গহনা, ৯০ ভরি রুপা এবং নগদ প্রায় ৬০ হাজার টাকাসহ প্রায় ২২ লাখ টাকার মালামাল চুরির ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য