| প্রচ্ছদ

করোনাভাইরাসের ভুয়া প্রতিরোধ ব্যবস্থায় সয়লাব অনলাইন

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৩ বার। প্রকাশ: ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ২০:২৪:০৭ ।

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের বেশ কিছু প্রতিরোধ ব্যবস্থা দেখা যাচ্ছে অনলাইনে। যার মধ্যে অধিকাংশ ভুয়া। ফেইসবুক, গুগল এই ধরনের সব কনটেন্ট সরিয়ে ফেলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

ব্লগপোস্টে ফেইসবুক লিখেছে, ‘করোনাভাইরাস সম্পর্কে যেসব লেখা মানুষের মনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে, সেগুলো দ্রুত সরিয়ে ফেলা হবে। এ জন্য ফ্যাক্ট-চেকিং ফিচার ব্যবহার করা হবে।’

ফেইসবুক বলছে, তাদের ওয়েবসাইটে গ্রহণযোগ্য প্রতিষ্ঠানের পরামর্শ ছাড়া বাকি সব রিমুভ করা হবে।

একই ধরনের বিবৃতি দিয়েছে গুগল। তারা বলছে, সাধারণ মানুষ তাদের সার্চ ইঞ্জিনে করোনাভাইরাস লিখে সার্চ দিলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নোটিশ দেখানো হবে।

তাদের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ইউটিউব থেকেও সব ধরনের ফেক ভিডিও সরিয়ে ফেলা হবে।

ঠিক কীভাবে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়েছিল- সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত নন বিশেষজ্ঞরা। তবে তাদের ধারণা, মানুষের দেহে এ রোগ এসেছে কোনো প্রাণী থেকে। তারপর মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়েছে।

এর লক্ষণ শুরু হয় জ্বর দিয়ে, সঙ্গে থাকতে পারে সর্দি, শুকনো কাশি, মাথাব্যথা, গলাব্যথা ও শরীর ব্যথা। সপ্তাহখানেকের মধ্যে দেখা দিতে পারে শ্বাসকষ্ট। সাধারণ ফ্লুর মতই হাঁচি-কাশির মাধ্যমে ছড়াতে পারে এ রোগের ভাইরাস।

করোনাভাইরাস মূলত শ্বাসতন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়। লক্ষণগুলো হয় অনেকটা নিউমোনিয়ার মতো। কারও ক্ষেত্রে ডায়রিয়াও দেখা দিতে পারে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো হলে এ রোগ কিছুদিন পর এমনিতেই সেরে যেতে পারে। তবে ডায়াবেটিস, কিডনি, হৃদযন্ত্র বা ফুসফুসের পুরোনো রোগীদের ক্ষেত্রে মারাত্মক জটিলতা দেখা দিতে পারে। এটি মোড় নিতে পারে নিউমোনিয়া, রেসপিরেটরি ফেইলিউর বা কিডনি অকার্যকারিতার দিকে। পরিণতিতে ঘটতে পারে মৃত্যু।

মন্তব্য