| প্রচ্ছদ

বগুড়ায় অপহরণের ৭ দিন পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, গ্রেফতার ৩

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ২৩৮ বার। প্রকাশ: ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

বগুড়ার আদমদীঘি আইপিজে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের কুমারি পূজা রানী (১৫) নামের এসএসসি পরীক্ষার্থীকে অপহরণের সাত দিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার আশুলিয়া এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এই ঘটনায় পুলিশ অপহরণকারী সজিবকে গ্রেফতার করে। সেই সাথে অপহরণ মামলার আসামী সজিবের বাবা শ্যামল মালি এবং মা কিরণ মালিকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার বিকালে তাদের আদালতে প্রেরণ করা হয়।

মামলা তদন্তকারি উপ-পরিদর্শক সোলায়মান আলী জানান, অপহরণকারীদের মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং এর মাধ্যমে তাদের অবস্থান শনাক্ত করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার আশুলিয়া থেকে অপহৃত পূজাকে উদ্ধার করা হয়। সেই সাথে আসামীদের গ্রেফতার করে পুলিশ। শনিবার ভিকটিমকে ডাক্তারী পরিক্ষা ও জবানবন্দি গ্রহনের জন্য আদালতে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, আদমদীঘির তালশস গ্রামের শ্রী নির্মল মোহন্তের মেয়ে পূজা  স্কুলে ও প্রাইভেট পড়তে আসা যাওয়ার পথে সজিব নামের ওই যুবক তাকে প্রেম নিবেদনসহ বিভিন্ন ভাবে উত্যক্ত করছিল। ঘটনাটি সজিবের পরিবারকে জানানোর পর সে ক্ষিপ্ত হয়।

গত ৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় পূজা সুরমা ক্লিনিকের পাশে একটি বাসায় প্রাইভেট পড়া শেষে বাড়ি ফিরছিলো। এসময় হাসপাতাল গেটের সামনে পৌঁছালে সজিব তার সহযোগিদের নিয়ে জোড়পূর্বক পূজাকে একটি মাইক্রোতে উঠে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

এই ঘটনায় ছাত্রীর বাবা নির্মল মোহন্ত বাদি হয়ে গত ৫ ফ্রেবুয়ারি রাতে আদমদীঘি থানায় উপজেলার কুন্দগ্রামের শ্রী সজিব তার বাবা শ্যমল মালি, মা কিরন মালি, তালশন গ্রামের সপ্তম মালি, প্রনয় মালিসহ ৫জনকে আসামী করে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

মন্তব্য