| প্রচ্ছদ

করোনা ভাইরাসে মৃতদের দেহ পুড়িয়ে ফেলছে চীন

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৯৮ বার। প্রকাশ: ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

চীনে নভেল করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের দেহ সমাধিস্থ না করে পুড়িয়ে ফেলা হচ্ছে। দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের (এনএইচসি) জারি করা আদেশের ভিত্তিতে করোনাভাইরাসে মৃতদের দেহ সৎকারে এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

১ ফেব্রুয়ারি এনএইচসির জারি করা আদেশে বলা হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের জন্য বিদায় অনুষ্ঠান বা কোনো ধরনের শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যাবে না। মৃতদেহ সৎকার চলাকালে কেউ সেখানে থাকতে পারবে না। তবে মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলার পর দেহাবশেষ সংগ্রহ করতে পারবে স্বজনরা।

এদিকে শনিবার এনএইচসি এই আদেশ জারির পর থেকে চীনের শবদাহের চুল্লিগুলোতে কাজের চাপে কর্মীদের রীতিমতো নাভিশ্বাস উঠেছে। প্রতিদিনই চুল্লিগুলোতে দাহের জন্য আসা মৃতদেহের সংখ্যা বাড়তে থাকায় পরিস্থিতি সামাল দিতে কর্মীদের দিনে প্রায় ২৪ ঘণ্টাই কাজ করতে হচ্ছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর চীনসহ প্রায় ২৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস। এতে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত চীনের মূল ভূখণ্ডেই অন্তত ৬৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। চীনের বাইরে ফিলিইপাইনে ও হংকংয়ে মৃত্যু হয়েছে দু'জনের। অবশ্য ফিলিপাইনে মারা যাওয়া ব্যক্তিও চীনেরই নাগরিক। এই ভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ৩১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

চীনের সর্বত্র করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় উৎপত্তিস্থল উহান শহরসহ বেশিরভাগ এলাকা কার্যত অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। বেশিরভাগ সড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে। বন্ধ রয়েছে গণপরিবহনও। সংক্রমণ ঠেকাতে চীনের বিভিন্ন শহরেও নানা ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করেছে। এ ছাড়া বেশ কিছু দেশ চীনের নাগরিক বা চীন থেকে আগত অন্য দেশের নাগরিকদের জন্য ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। সূত্র: ডেইলি মেইল, সিএনএন ও বিজনেস ইনসাইডার

মন্তব্য