| প্রচ্ছদ

বগুড়ার শেরপুরে দুই মাদ্রাসা সুপারসহ ১২ ভুয়া পরীক্ষার্থী আটক

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ২৩৪ বার। প্রকাশ: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

বগুড়ার শেরপুরে দুই মাদ্রাসা সুপারসহ বারো ভুয়া দাখিল পরীক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আটক হওয়া ওই দুই সুপারকে একমাস করে কারাদন্ড দেয়া হয়। রোববার  বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার সীমাবাড়ী ইউনিয়নের ধনকুন্ডি আয়েশা মওলা বক্স  দাখিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে দাখিল পরীক্ষার আরবী দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষা চলাকালে এই ঘটনা ঘটে। দণ্ডাদেশ প্রাপ্ত সুপাররা হলেন- উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের মধ্যভাগ দাখিল মাদ্রাসার সুপার ও গুয়াগাছি গ্রামের আজিজুর রহমান ছেলে আকবর আলী (৪৯) ও সীমাবাড়ী ইউনিয়নের নাকুয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার ও সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার আবুদিয়া গ্রামের মৃত আহমদ আলীর ছেলে সেলিম উদ্দীন (৪৮)। এছাড়া আটককৃত ভুয়া পরীক্ষার্থীকে থানা পুলিশের হেফাজতে দেয়া হয়েছে। তারা হলেন- কল্যণী বালিকা দাখিল মাদ্রাসার মোছা. আরমিনা খাতুন, সাথী আক্তার, সীমা খাতুন, লায়লা আক্তার, নাসিমা পারভীন, নাকুয়া দাখিল মাদ্রাসার আবু রায়হান, আব্দুস সালাম, কাওছার আলী, সুজন মিয়া, তাসলিমা খাতুন ও মধ্যভাগ দাখিল মাদ্রাসার মো. সোহাগ হোসেন ও মোছা. শ্যামলী খাতুন।

উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. জামশেদ আলম রানা এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ওই মাদ্রাসা কেন্দ্রে পরীক্ষা চলাকালে গোপনে ভুয়া পরীক্ষার্থীদের সম্পর্কে জানতে পেরে তাদের যাচাই-বাছাই করা হয়। একপর্যায়ে তাদের প্রবেশপত্রের সঙ্গে ছবি ও নামের মিল না থাকায় ভুয়া পরীক্ষার্থী প্রমানিত হওয়ায় তাদের আটক করা হয়। এছাড়া তারা প্রত্যেকেই অন্য পরীক্ষার্থীর হয়ে পরীক্ষা দিয়ে আসছিল বলেও স্বীকার করেন। পাশাপাশি জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, তাদের মাদ্রাসাগুলো ননএমপিও হওয়ায় সুপাররা তাদের অন্যের পরীক্ষার প্রক্সি দিতে এনেছিল। পরে ভুয়া পরীক্ষার্থীদের কর্মকান্ডে সহযোগিতা করার অপরাধে ওই দুই মাদ্রাসা সুপারকে একমাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়েছে বলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জানান। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির বলেন,দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত মাদ্রাসা সুপার ও ভুয়া পরীক্ষার্থীরা থানা হেফাজতে রয়েছেন। তবে ভুয়া পরীক্ষার্থীদের ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। পরবর্তীতে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান।
 

মন্তব্য