| প্রচ্ছদ

ভারতে ৬৮ ছাত্রীর অন্তর্বাস খুলে ঋতুস্রাব পরীক্ষা!

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ১০২ বার। প্রকাশ: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

ভারতের গুজরাটের এক কলেজে ঋতুস্রাব হয়েছে কি না প্রমাণ পেতে ৬৮ ছাত্রীকে অন্তর্বাস খুলতে বাধ্য করা হয়েছে। ছাত্রীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা ঋতুস্রাবের নিয়ম না মানার মাধ্যমে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত হানছেন। 

এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দেশটিতে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া।

সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে গুজরাটের ভুজের শ্রী সাজানন্দ গার্লস ইন্সটিটিউটে। ওই কলেজে হোস্টেল ওয়ার্ডেন কলেজ অধ্যক্ষে রিতা রানিগার কাছে অভিযোগ জানান, কলেজে ছাত্রীরা ঋতুস্রাবের নিয়ম কানুন মানছে না। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করা হচ্ছে। ওই অবস্থায় মন্দির থেকে শুরু করে হোস্টেলের মধ্যে ঢুকে পড়ছে ছাত্রীরা। অভিযোগ পাওয়ার পরই ব্যবস্থা নেন কলেজ অধ্যক্ষ। কলেজের ক্লাসরুম থেকে ৬৮ ছাত্রীকে তুলে নিয়ে আসা হয় বাথরুমে। সেখানে তাদের বাধ্য করা হয় অন্তর্বাস খুলতে। 

যদিও এই ঘটনায় কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এখনও কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি।

এ ঘটনার পর নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হোস্টেলের এক কর্মী বলেন, কিছুদিন আগেই একটি ব্যবহৃত সেনিটারি ন্যাপকিন পাওয়া গিয়েছিল হস্টেলের বাইরে বাগানে। কর্তৃপক্ষের তরফে বিষয়টির তদন্ত করা হয় কিন্তু দোষীকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

কলেজ কর্তৃপক্ষের আরো দাবি, তাদের এই কলেজে একটি অলিখিত গাইডলাইন রয়েছে। তা হলো ঋতুস্রাব চলাকালীন ছাত্রীরা রান্নাঘরে বা মন্দির চত্ত্বরে প্রবেশ করতে পারবে না। কিন্তু সে নিয়ম মানা হচ্ছিল না। যার জেরেই এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। 

কলেজের ট্রাস্টি পারভিন পিন্ডোরিয়া ওই ঘটনা কাউকে না জানাতে ছাত্রীদের হুমকি দেন। তিনি টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলন, ছাত্রীরা কলেজের নিয়ম মানছিল না। নিয়াম মানতে হবে জেনেই তারা ভর্তি হয়েছিল। 

মন্তব্য