| প্রচ্ছদ

পেঁয়াজ, টমেটো দিতে-নিতে পারে ঠিকই, কিন্তু ক্রিকেট...

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৬০ বার। প্রকাশ: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে ক্রিকেটীয় সম্পর্ক বন্ধ রয়েছে বহুদিন। একমাত্র আইসিসি টুর্নামেন্ট ছাড়া ক্রিকেট মাঠে মুখোমুখিই হয় না দুদল। দ্বিপক্ষীয় সিরিজ চালু করার বিষয়ে আগেও গলা ফাটিয়েছেন অসংখ্য ক্রিকেটার। এবার সরব হলেন সাবেক পাক স্পিডস্টার শোয়েব আখতার। দ্বিপক্ষীয় সিরিজ চালু না হলে দুই দেশের মধ্যে সব সম্পর্ক শেষ করার পক্ষে তিনি।

নিজের জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেলে শোয়েব বলেন, ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে ক্রিকেট না হলে বাণিজ্যসহ সবকিছুই বন্ধ হওয়া উচিত। দুই দেশ পেঁয়াজ-টমেটো আমদানি-রফতানি করতে পারে ঠিকই। কিন্তু ক্রিকেট হলেই সমস্যা। ইন্দো-পাক ক্রিকেটের কথা উঠলেই শুরু হয় রাজনীতির খেলা। তারা মনে হয় জা না, দুদেশের মধ্যে ক্রিকেট সিরিজ হলে ব্যাপক অর্থ উপার্জন হবে। সেই সঙ্গে ফ্যান ফলোয়ার বাড়বে, নতুন তারকার উত্থান ঘটবে। ভারত-পাকিস্তান একে অপরের বিপক্ষে এখন কেমন খেলে, তা দেখার জন্য আমরা সবাই তাকিয়ে।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের অনুমতি না নিয়ে পাকিস্তানে গিয়েছিল ভারত কাবাডি দল। সেখানে বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছে তারা। ফাইনালে টিম ইন্ডিয়াকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে পাক ব্রিগেড। এর আগে টেনিসের ডেভিস কাপে মুখোমুখি হয় দুদল।

পরিপ্রেক্ষিতে শোয়েবের প্রশ্ন– দুদেশ একে অপরের বিপক্ষে কাবাডি, ডেভিস কাপ খেলে। তা হলে ক্রিকেট খেলতে তাদের সমস্যা কোথায়? সমস্যার সমাধানও বাতলে দেন তিনি। রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস বলেন, ভারত পাকিস্তানে এসে খেলতে না চাইতেও পারে। আবার পাকিস্তান ভারতে গিয়ে নাও খেলতে পারে। সে ক্ষেত্রে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ করা হোক।

সম্প্রতি পাকিস্তানের মাটিতে টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট সিরিজ খেলেছে শ্রীলংকা। বাংলাদেশও দেশটি সফরে গেছে। শোয়েব মনে করেন, যে কোনো দেশ এখন পাকিস্তানে এসে নিরাপদে খেলতে পারে।

তিনি বলেন, আমরা বিশ্বের অন্যতম সেরা আয়োজক দেশ। ভারত এর প্রমাণ আগেও পেয়েছে। বীরেন্দ্র শেবাগ, সৌরভ গাঙ্গুলি, শচীন টেন্ডুলকারকে আমরা খুব ভালোবাসি। এ দেশে কোহলিরও প্রচুর ফ্যান রয়েছে। আমাদের মধ্যে সৃষ্ট দূরত্বের জন্য ক্রিকেট বন্ধ করে দেয়া উচিত নয়। আশা করি, শিগগির ভারত ও পাকিস্তান দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলবে।

তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার/ইউটিউব।

মন্তব্য