| প্রচ্ছদ

‘বিশ্বাসঘাতক’ মাহাথির!

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫৭ বার। প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

বিশ্বাসঘাতক’ মালয়েশিয়ার নতুন রাজনৈতিক পুনর্বিন্যাস বোঝাতে পার্তি কেয়াদিয়ান রাকায়েত (পিকেআর) পার্টির প্রেসিডেন্ট আনোয়ার ইব্রাহিম ঠিক এই শব্দটিই ব্যবহার করেছেন। মালয়েশিয়ায় খুব জলদিই নতুন জোট সরকার গঠিত হবে, আর সেই জোটে তার পার্টিকে রাখা হবে না এমনটা বলেছেন আনোয়ার ইব্রাহিম।

সদ্য পদত্যাগ করা প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের পাকাতান হারাপান (পিএইচ) জোট ২০১৮ সালের মে মাসে ক্ষমতায় বসে। তখন থেকেই দেশটির রাজনীতিকরা আশা করছিলেন চলতি বছরের ২৩ ফেব্রুয়ারি নতুন কেন্দ্রীয় সরকার গঠিত হবে। এ লক্ষ্যে উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক দল ও মোহাম্মদ আজমিন আলী নেতৃত্বাধীন বিরোধী পিকেআর পার্টির সঙ্গেও কয়েক দফা বৈঠক হয়। এ বৈঠক থেকেই একটি জল্পনা-কল্পনা প্রায় শিকড় গেড়ে বসে যে, মাহাথির মোহাম্মদ ইউনাইটেড মালয়স নাশিওনাল অর্গানাইজেশনের (ইউএমএনও) সঙ্গে গাঁট বাঁধতে যাচ্ছেন। এই ইউএমএনওর হয়েই ১৯৮১ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মাহাথির।

গত রবিবার সন্ধ্যায় ফেইসবুক লাইভে ৭২ বছর বয়সী আনোয়ার ইব্রাহিম বলেন, ‘আজকের খবরে আমরা হতবাক। আমাদের সঙ্গে যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল তার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছে।’ তাকে প্রধানমন্ত্রী বানানোর প্রতিশ্রুতি থেকে মাহাথির সরে এসেছেন এমন অভিযোগ তার। তাকে জোট থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে এমন সন্দেহ থেকে গতকাল সোমবার থেকেই নিজের সমর্থকদের রাস্তায় নামিয়ে দিয়েছেন তিনি। ফলে মালয়েশিয়ার রাজনীতিতে নতুন করে অচলাবস্থার শুরু হতে যাচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

অনেক দিন ধরেই দেশটির রাজনীতিতে বলাবলি হচ্ছিল যে ইউএমএনও ও অন্য পার্টিগুলো বারিসান নাশিওনাল (বিএন) জোটের সঙ্গে গাঁট বেঁধে ফের ক্ষমতায় যেতে চাইছে। এশিয়ার টাইমসকে পিএইচ জোটের এক সূত্র জানায়, ‘এটা সত্যিই পেছনের দরজা দিয়ে ক্যু করার মতো। তারা এই রাস্তায় চললে, মালয়েশিয়ার সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হবে। আমরা আবার ১৯৯৮ সালে ফিরে যাব।’

মাহাথিরের পার্টি প্রিবুমি বার্সাতু মালয়েশিয়া (পিপিবিএম) ইতিমধ্যেই পিএইচ জোট থেকে বের হয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে। ওদিকে মাহাথির বলেন, পিএইচ নেতাদের সিদ্ধান্তের কারণেই তাকে ক্ষমতা ছাড়তে হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, ‘আমি যা বলব, তারা তাই অনুসরণ করবে। ক্ষমতায় থাকব কি থাকব না, সেটা আমার ওপর নির্ভর করছে। তারা আমাকে বিশ্বাস করে।’

প্রসঙ্গত, ইউএমএনও নেতা নাজিব রাজাকের দুর্নীতির কারণে ২০১৮ সালের নির্বাচনে নতুন করে রাজনীতিতে ফিরতে হয় মাহাথির মোহাম্মদকে। তখন জোট গঠনের জন্য আগামী দফায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার শর্তে মাহাথিরের সঙ্গে গাঁট বেঁধেছিলেন আনোয়ার ইব্রাহিম।

মন্তব্য