| আলোচনা

বগুড়া বড় মসজিদের খুৎবা: ‌'রোযার মাধ্যমে আমিত্বকে ধ্বংস করতে হবে'

আমিনুর রহমান :
পঠিত হয়েছে ৬১৭ বার। প্রকাশ: ১৮ মে ২০১৮ । আপডেট: ১৮ মে ২০১৮ ।

১৮ মে, শুক্রবার। পহেলা রমজান।

বগুড়া কেন্দ্রীয় বড় মসজিদের খতিব মাওলানা আজগর আলী সাহেব জুম’আর নামাজের পূর্বে বাংলা খুৎবায় পবিত্র কোরআন শরীফের সূরা বাকারাহ্-এর ১৮৩ নম্বর আয়াত পাঠ করেন। তিনি এর বাংলা অনুবাদ এবং তাফসীর অর্থাৎ ব্যাখ্যাও তুলে ধরেন। নিচে মূল কোরআন শরীফ থেকে সূরাটির আরবি উচ্চারণ ও বাংলা অনুবাদ অংশ স্ক্যান করে দেওয়া হলো।

সূরা বাকারাহ্’র ১৮৩ সূরায় আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীন বলেছেন, ‘হে ঈমানদারগণ! তোমাদের উপর রোযা ফরজ করা হলো, যেভাবে ফরয করা হয়েছিল তোমার পূর্ববর্তীদের উপর। যাতে তোমরা মুত্তাকী হতে পার।’

মাওলানা আজগর আলী সূরাটির তাফসীর করতে গিয়ে বলেছেন, আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীন ঈমানদারগণ অর্থাৎ মুসলমানদের জন্য রোযা ফরজ করেছেন। মুসলমানরা যাতে তাকওয়া বা খোদাভীরুতা অর্জন করতে পারে সেজন্যই রোযা পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিস্তারিত আলোচনায় গিয়ে মাওলানা আজগর আলী এ সম্পর্কিত অনেক হাদিসে রাসুল সাল্লাহু আলাইহিস সাল্লামকে উদ্ধৃত করে বলেন, সৃষ্টিগতভাবে মানুষের মাঝে দু’টি প্রবৃত্তি বিরাজমান। একটি সু-প্রবৃত্তি এবং অন্যটি হলো কু-প্রবৃত্তি। সু-প্রবৃত্তি মানুুষকে ভাল কাজের দিকে টানে আর তার উল্টো হলো কু-প্রবৃত্তি। কু-প্রবৃত্তি দমন করতে না পারলে মানুষ এক সময় তার অধীনস্ত হয়ে যাবে। রোযা হলো কু-প্রবৃত্তি দমনের অন্যতম উপায়। শরীরকে কষ্ট দিলে কু-প্রবৃত্তিগুলো শক্তি হারিয়ে ফেলে।

মাওলানা আজগর আলী বলেন, কু-প্রবৃত্তি বলতে আমরা সাধারণত খারাপ কাজগুলোকেই বুঝি। কিন্তু আপাত দৃষ্টিতে এমনও অনেক কাজ আছে যেগুলো বাইরে থেকে দেখলে মনে হতে পারে এগুলো ভালই; কিন্তু ভেতরটা আসলে ভাল নয়। উদাহরণস্বরূপ তিনি বলেন, ‘আমাদের মধ্যে অনেকে ইবাদত নিয়ে বড়াই করেন। এটাও কু-প্রবৃত্তিরই একটা অংশ। আমিত্ব থেকে এসবের সৃষ্টি হয়। এই আমিত্বকেও ধ্বংস করতে হবে। না হলে এক সময় আমিত্ব আমাদেরকে গিলে ফেলবে। তো রোযা সেই আমিত্বকে ধ্বংস করার অন্যতম ওষুধ বা হাতিয়ার।’

খুৎবা প্রদানকালে মাওলানা আজগর আলী আমিত্ব থেকে বাঁচার জন্য উপস্থিত মুসল্লীদের একটি দোয়া শিখিয়ে দেন। যার মর্মার্থ হলো ‘হে আল্লাহ্ আমাকে আমার থেকে রক্ষা করুন। আমাকে আপনার হাওলা করে দিলাম। আমার সবকিছু আপনার হেফাজতে দিলাম।’

আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীন আমাদের সবাইকে রমজানের ৩০টি রোযা রাখার তৌফিক দিন। আমিন।

মন্তব্য