| প্রচ্ছদ

নওগাঁয় মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টাঃ দুই যুবক আটক

নওগাঁ (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৫১ বার। প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার বটতলী মাদ্রাসার নবম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীকে (১৫) অপহরণের চেষ্টাকালে দুই যুবককে আটক করেছে স্থানীয়রা। পরে তাদেরকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মঙ্গলবার তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার বিকেলে উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের বটতলী চৌরাস্তা মোড় এলাকায় মাদ্রাসা ছাত্রী অপহরণ চেষ্টার এই ঘটনা ঘটে। ঐদিন সন্ধ্যায় নারী ও নির্যাতন দমন আইনে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে নিয়ামতপুর থানায় মামলা করেন।

গ্রেপ্তার হওয়া ওই দুই যুবক হলো, নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার সোফাপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণগোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা সাজ্জাদ হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসান (২২) ও মান্দা উপজেলার মইনম ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৫)।

মামলার বিবরণ দিয়ে নিয়ামতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, ওই ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে মুঠোফোনে মহাদেবপুর উপজেলার কৃষ্ণগোপালপুর গ্রামের মেহেদী হাসান নামে এক তরুণ উত্ত্যক্ত ও প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় মুঠোফোনে ওই তরুণ কিশোরীকে অপহরণ ও তাঁর সঙ্গে খারাপ কিছু করার হুমকিও দিতো। কিন্তু এর পরেও মেহেদীর প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সে তার বন্ধু সাদ্দাম হোসেনকে নিয়ে ওই ছাত্রীকে অপহরণের পরিকল্পনা করে।

সোমবার বিকেল ৪টার দিকে মাদ্রাসা ছুটির পর ওই ছাত্রী পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিল। সে বটতলী চৌরাস্তার মোড়ে পৌঁছালে আগে থেকে ওঁত পেতে থাকা মেহেদী ও সাদ্দাম জোরপূর্বক তাঁকে মোটরসাইকেলে তোলার চেষ্টা করেন। এসময় ছাত্রীটির চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে এবং ওই দুই তরুণকে আটক করে। পরে খবর পেয়ে নিয়ামতপুর থানা পুলিশ আটক দুই তরুণকে থানায় নিয়ে যায়।

বটতলী মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক (সুপারিন্টেডেন্ট) জিয়াউর রহমান জানান, ওই ছাত্রী বাবা নেই। তিনি অনেক আগেই মারা গেছেন। তার মা তাকে কষ্ট করে লেখা-পড়া করাচ্ছেন। ছাত্রীটিও লেখা-পড়ায় বেশ ভাল ও শান্ত স্বভাবের। গ্রামের মেঠো পথে দিনদুপুরে তাকে অপহরণের এই ঘটনায় এলাকায় স্কুল-মাদ্রাসার ছাত্রী ও তাঁদের অভিভাবকদের মধ্যে বেশ ভীতির সঞ্চার হয়েছে।  এ ধরণের অপরাধীদের কঠোর শাস্তি হওয়া দরকার।
 

মন্তব্য