| প্রচ্ছদ

বগুড়া বইমেলায় এখনো বিক্রির শীর্ষে শিশুদের মজার সব বই

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে বার। প্রকাশ: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ২০:৩২:৩৪ ।

অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বগুড়া সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে ও জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বগুড়া বইমেলায় এবার সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিষয়ক বিভিন্ন রচনাবলী। সামনেই মুজিব শতবর্ষ। যে কারণে পাঠকের মধ্যেও আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। এর সাথে জনপ্রিয় লেখকদের নামী উপন্যাস, গল্প, কবিতার বই বিক্রি হচ্ছে। বইমেলায় এখনো বিক্রির শীর্ষে আছে শিশুদের মজার সব বই। 
বগুড়া বইমেলাকে ঘিরে দুপুর গড়িয়ে বিকেল হলেই ক্রেতা আর বিক্রেতাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। সকালের দিকেও ভীড় থাকে। জেলা শহরের বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা সকালে ও দুপুরে বেশি বই কিনছে। আরো যরা বয়স্ক তারা সময় করে বিকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত নিজের পছন্দমত কেনাকাটা করছে। নিজের পছন্দমত বই সংগ্রহ করা নিয়ে পাঠক এই স্টল সেই স্টল ঘুরে ঘুরে কিনেছে নিজের জন্য বই। 
বগুড়ার শহীদ খোকন পার্কে ১০ দিনের বইমেলা ২৯ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হবে। ছোট বড় ৭৫ টি স্টল রয়েছে মেলায়। সবচেয়ে বড় স্টল দিয়েছে নিউজ কর্নার পাবলিকেশন্স, এ স্টলে ছোটদের বঙ্গবন্ধু, ঠাকুরমা’র ঝুলি, পরীদের গান, পরীদের গল্প, ছোটদের নীতিকথা সহ বিভিন্ন ধরনের গল্পের বই সহ দেশ বিদেশের বরেণ্য লেখকদের বই পাওয়া যাচ্ছে। ঢাকা থেকে প্রকাশিত মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক বই সহ সব বই এখানে পাওয়া যাচ্ছে।
নিউজ কর্ণার পাবলিকেশন্স এর প্রধান কালিপদ সেন টিপু জানান, বগুড়া বইমেলায় এবার কেনজানি মুক্তিযুদ্ধ, ছোটদের বঙ্গবন্ধু, ভাষা আন্দোল এর বিষয়ক ভিত্তিক বই বেশি বিক্রি হচ্ছে। সকাল থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত মেলায় পাঠক থাকছেই। কিছু পাঠক আছেন যারা বাড়ি থেকে বইয়ের নাম তালিকা করে এনে দিচ্ছেন। আমরা চেষ্টা করছি পাঠকের হাতে তার পছন্দের বই তুলে দিতে। 
বগুড়া বইমেলায় আসা পাঠকরা বলছেন, অতিরিক্ত খরচ করে আর ঢাকায় যেতে হচ্ছে না। ঢাকার সব বই এখন বগুড়া বইমেলাতে পাওয়া যাচ্ছে। যে কারণে পাঠকদের মাঝে আরো বেশ গুঞ্জন পড়েছে। নতুন বইয়ের তালিকা যেমন হোক। এবার তরুণরা বেশি কিনছে বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানের কল্পকথা ভিত্তিক বিভন্ন প্রকাশিত বই। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট থেকে এবার আগামী শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারি বগুড়া বইমেলা শিশুদের জন্য ঘোষণা করা হয়েছে। সেদিন ছুটির দিনে শিশুরা যেন নিজেদের পছন্দ মতে কেনাকাটা করতে পারে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। 
বুধবার বগুড়া বইমেলায় নির্ধারিত আলোচক জিলেন কবি ও প্রাবন্ধিক জয়ন্ত দেব ও আনন্দকণ্ঠ বগুড়ার সভাপতি এবিএম জিয়াউল হক বাবলা। এতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জোটের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সিদ্দিকী। জোটের দপ্তর সম্পাদক এইচ আলিম এর সঞ্চালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন জোটের সহ সভাপতি মতিয়ার রহমান, আসাদ হোসেন, সহ সাধারণ সম্পাদক এসএম বেলাল হোসেন, আলমগীর কবির, অর্থ সম্পাদক রবিউল আলম অশ্রু, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলে রাব্বী, নির্বাহী সদস্য আসাদুর রহমান খোকন, আব্দুল আউয়াল, বগুড়া ইয়ূথ কয়্যারের সভাপতি লায়ন আতিকুর রহমান মিঠু, উপস্থিত ছিলেন উচ্চারণ একাডেমির পরিচালক এ্যাড পলাশ খন্দকার, বাঙময় আবৃত্তি চক্রের সাধারণ সম্পাদক দৌলতুজ্জামান দৌলত, খলিলুর রহমান চৌধুরী, কবি সিকতা কাজল প্রমুখ।
বুধবার দুটি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। মতিয়ার রহমান এর ফিরে আসি বারবার গোধূলিবেলায় কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন কবি মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্। এসএম শাহজাহান এর রশিকতার রশি হলো গলার ফাঁসি রম্যল্পের মোড়ক উন্মোচন করেন কবি মতিয়ার রহমান। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের দপ্তর সম্পাদক এইচ আলিম এর সঞ্চালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন নজরুল পরিষদ বগুড়ার সভাপতি এড মনতেজার রহমান মন্টু, সাধারণ সম্পাদক হাকীম মজিদ মিয়া, মৌমাছি খেলাঘরের সভাপতি মাসুদুর রহমান রানা, সাহাব উদ্দিন হিজল, হারুন অর রশীদ, মো: জাহিদ। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে মৌমাছি খেলাঘর, নজরুল পরিষদ বগুড়া, বগুড়া ভাওয়াইয়া পরিষদ, একক নৃত্য পরিবেশন করে অমৃতা ও সমৃতা। 

 

মন্তব্য