| প্রচ্ছদ

সালমান শাহর ভক্তদের মানববন্ধন, তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৬৮ বার। প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

সালমান শাহকে হত্যা নয়, তিনি আত্মহত্যা করেছেন - পিবিআইয়ের এই প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে প্রয়াত অভিনেতার ভক্তরা। তারা ঘটনার পুনঃতদন্ত ও সালমান শাহ হত্যার ন্যায়বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

এসব দাবি জানিয়ে শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছেন সালমান শাহর ভক্তরা।

মানববন্ধন কর্মসূচির আহ্বায়ক মাসুদ রানা নকীব জানান, সালমান শাহর পরিবার ও তার ভক্তরা পিবিআইয়ের প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন সেটা জানান দিতেই সালমান শাহ ভক্তরা মানবন্ধন করছেন।

২৪ ফেব্রুয়ারি সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুরহস্য নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে পিবিআই। সেখানে বলা হয়- খুন নয়, আত্মহত্যা করেছেন সালমান। পিবিআইর প্রতিবেদনে সালমান শাহর সঙ্গে শাবনূরের 'অতি অন্তরঙ্গ' সম্পর্ককেও আত্মহত্যার জন্য দায়ী করা হয়েছে।

আত্মহত্যার পক্ষে বেশ কয়েকটি যুক্তিও উপস্থাপন করেছে পিবিআই। প্রতিবেদনে প্রধান কারণ হিসেবে দেখানো হয়েছে, শাবনূরের সঙ্গে সালমানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। তবে এই প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন সালমানের মা নীলা চৌধুরীসহ তার ভক্তরা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন,  পিবিআইয়ের প্রতিবেদনে অনেক বিষয়ই দুর্বল মনে হয়েছে।  সে সময় সালমান শাহ্‌-কে নিজেদের প্রযোজিত, পরিচালিত সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ করাতে না পেরে এবং তার ব্যাপক জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি কেন্দ্রিক প্রভাবশালী একটি মহল তাকে ঘিরে নানা ষড়যন্ত্র ও নোংরা রাজনীতিতে লিপ্ত ছিলেন। তাকে জড়িয়ে মনগড়া, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও মিথ্যা খবর একের পর এক প্রকাশ করিয়ে তার সুন্দর এবং স্বাভাবিক জীবন এরা অতিষ্ঠ করে তুলেছিলেন। নায়িকা শাবনুরের সাথে সালমান শাহ্‌’র প্রেম ও বিয়ের গুঞ্জন-গুজব ছড়িয়ে তার সুখের সংসারে অশান্তি তৈরি করিয়ে এই মহল তাকে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে তুলেছিলেন। এমনকি জীবিত থাকতে সালমান শাহ্‌ ঢাকার তেজতুরী বাজার, ধানমণ্ডি ঈদগাহ মাঠ ও চট্টগ্রামে শ্বশুরবাড়ি সংলগ্ন এলাকায় তিনবার সন্ত্রাসী হামলার শিকারও হয়েছিলেন। অথচ গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়গুলো এড়িয়ে গিয়ে পিবিআই শুধুমাত্র “পারিবারিক কলহ” নিয়েই দীর্ঘ সময় ধরে তদন্ত করে অবশেষে ‘‘আত্মহত্যা’’ উল্লেখ করে মহামান্য আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করলেন।

মাসুদ রানা নকীব বলেন, সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি কেন্দ্রিক এসব ঘটনা-দুর্ঘটনাগুলো কি খতিয়ে দেখার প্রয়োজন ছিল না? এসব কি সালমান শাহ্‌’র ব্যক্তি ও কর্মজীবনের বাইরের বিষয় ছিল? সালমান শাহ্‌র রহস্যজনক অকাল মৃত্যুতে কি আমাদের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির সামান্যতম ক্ষতিও হয়নি? আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট বিনীত অনুরোধ জানাই, সালমান শাহ্‌’র সাথে ঘটে যাওয়া প্রত্যেকটি ঘটনা-দুর্ঘটনার বিস্তারিত কারণগুলো গুরুত্ব দিয়ে যেনো সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ পুনঃতদন্ত করার মাধ্যমে কালজয়ী এই নায়কের রহস্যজনক অকাল মৃত্যুর জন্য দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা হয়।

মন্তব্য