| প্রচ্ছদ

বগুড়ায় পুলিশ মেমোরিয়াল ডে পালিত

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে বার। প্রকাশ: ০১ মার্চ ২০২০ ১১:৫১:৫৪ ।

কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত পুলিশ সদস্যদের স্মরণে বগুড়ায় পুলিশ মেমোরিয়াল ডে পালন করেছে জেলা পুলিশ। রোববার সকাল ১০ টায় পুলিশ লাইন্সে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানিয়ে দিনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। শ্রদ্ধা জানানো শেষে নিহত পুলিশ সদস্যদের স্মরণে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পরে পুলিশ লাইন্স স্কুল ও কলেজ অডিটোরিয়ামে বিভিন্ন সময় দেশের বিভিন্ন স্থানে কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত বগুড়া  জেলার বাসিন্দা ২১ পুলিশের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।  
২১ পুলিশ সদস্য হলেন, সন্ত্রাসী হামলায় নিহত শেরপুর উপজেলার উলিপুর নতুনপাড়া কনস্টবল ফরিদুল ইসলাম। 
সোনাতলা উপজেলার হালদাবগা গ্রামের কনস্টবল ফুল মিয়া। শিবগঞ্জ উপজেলার বোয়ালমারী গ্রামের এ এস আই বেলাল উদ্দিন মন্ডল, রহবল গ্রামের কনস্টবল মুকুল হোসাইন। সদর উপজেলার শেখপাড়া গ্রামের এটি এস আই সুজাউল ইসলাম। সারিয়াকান্দি থানার উপজেলার গনকপাড়া গ্রামের নায়েক ওয়াহেদ আলী। 

সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত, কাহালু উপজেলার নারহট্ট গ্রামের এস আই রেজাউল করিম, দূর্গাপুর গ্রামের কনস্টবল আব্দুল বাছেদ। 
সোনাতলা উপজেলার আগুনিয়াতাইর গ্রামের কনস্টবল আব্দুল বারী, আদমদিঘী উপজেলার বাগবাড়ী গ্রামের নায়েক হাফিজার রহমান। 
দুঁপচাচিয়া উপজেলার অর্জুনগাড়ী গ্রামের এস আই শাহিনুর ইসলাম। সারিয়াকান্দি উপজেলার শেখাহাতি গ্রামের কনস্টবল আব্দুল জলিল, খোর্দ্দা বলাইল গ্রামের এটি এস আই নজরুল ইসলাম, গোদাগাড়ি গ্রামের কনস্টবল মোস্তাফিজুর রহমান। গাবতলী উপজেলার সোনাপুর গ্রামের এস আই আব্দুর রহমান। 

জামায়াত শিবিরের হামলায় নিহত, সোনাতলা উপজেলার ঠাকুরপাড়া গ্রামের কনস্টবল বাবলু মিয়া, ডিউটি অবস্থায় অসুস্থ হয়ে, আদমদিঘী উপজেলার মন্ডবপুর গ্রামের কনস্টবল আবুল ফজল।  সোনাতলা উপজেলার চুকাইনগর গ্রামের কনস্টবল আব সাইদ মোল্লা।  শিবগঞ্জ উপজেলার দহপাড়া গ্রামের নায়েক মোকাম্মেল হোসেন।  সদর উপজেলার শেখেরকোলা গ্রামের এ এস আই রকিবুল ইসলাম। গাবতলী উপজেলার নিজকাকড়া গ্রামের কনস্টবল মেহেরুল ইসলাম। 

আলোচনা সভায় নিহত পুলিশ সদস্যর পরিবারের পক্ষ থেকে এ এস আই রকিবুল ইসলামের স্ত্রী সামছুন নাহার বলেন, আমাদের পরিবারের উপার্জন যোগ্য সদস্যকে হারিয়েছে। আমাদের কিছু চাইনা আমাদের সন্তানদের মানুষ করার মতো সামর্থ্য চাই শুধু। এজন্য আমাদের রেশন ব্যবস্থা চালু করলে আমাদের পরিবার উপকৃত হতো। 
আলোচনা সভায়  পদোন্নতি  প্রাপ্ত পুলিশ সুপার সওজ ইসলাম, হাইওয়ে পুলিশের পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ শহিদুল্লাহ, এছাড়াও জেলা পুলিশের পদোন্নতি প্রাপ্ত পুলিশ সুপার আরিফুর রহমান মন্ডল,আব্দুল জলিল, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের পদোন্নতি প্রাপ্ত পুলিশ সুপার আবু সায়েম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন  চক্রবর্তী, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সাবিনা ইয়াছমিন ও রাজিউর রহমান, বগুড়া সদর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান, জেলা পুলিশের  গোয়েন্দা শাখার ওসি আছলাম আলী, সদর থানার পরিদর্শক তদন্ত রেজাউল করিম রেজা উপস্থিত ছিলেন।
শেষে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পরিবারের সদস্যদের হাতে উপহার সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। 
পুুুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাপস কুমার পাল।

মন্তব্য