| প্রচ্ছদ

চোখে ট্যাটু করাতে গিয়ে চিরতরে অন্ধ হলেন মডেল

পুন্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ১৪ বার। প্রকাশ: ০৪ মার্চ ২০২০ ।

চোখে ট্যাটু করাতে গিয়ে চিরতরের জন্য দৃষ্টি হারিয়েছেন ২৫ বছর বয়সী এক মডেল। ঘটনাটি ঘটেছে ইউরোপের দেশ পোল্যান্ডের রোকলায়। ভুক্তোভোগী ওই মডেলের নাম - আলেকজান্দ্রা স্যাডোওস্কা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানিয়েছে, পোল্যান্ডের র‌্যাপার পোপেককে বেশ অনুসরণ করেন মডেল আলেকজান্দ্রা স্যাডোওস্কা। ওই র‌্যাপারের মতো লুক পেতে তিনিও চোখের ভেতরে ট্যাটু করাতে আগ্রহী হন। ট্যাটুচির নাম - আইবল বা স্ক্লেরাল ট্যাটু। এতে চোখের সাদা অংশটি কালো রঙ দিয়ে ট্যাটু করানো হয়।

ওই ট্যাটুটি করাতে পিয়োটার নামে স্থানীয় এক ট্যাটু শিল্পীর দারস্থ হন আলেকজান্দ্রা। কথামতো পিয়োটার তার চোখের ভেতরে ট্যাটু করে দেন। প্রথম দিকে প্রচণ্ড যন্ত্রণা অনুভব করলে পিয়েটার তাকে জানায়, বিষয়টি স্বাভাবিক এবং পেইন কিলার খেলেই ব্যথা উপশম হবে। কিন্তু তা না হয়ে, চোখে অন্ধকার দেখা শুরু করেন আলেকজান্দ্রা। সেই অন্ধকার জগত ছেড়ে আর আলোর জগতে ফেরা হয়নি আলেকজান্দ্রার। চিরতরে অন্ধ হয়ে যান তিনি।

এ বিষয়ে আলেকজান্দ্রার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ট্যাটু আঁকতে গিয়ে শিল্পী আলেকজান্দ্রার চোখের মণিতে আঘাত করে ফেলে। এ ছাড়া ওই ট্যাটু করতে যে কালি ব্যবহার করা হয় তা সরাসরি আলেকজান্দ্রার রেটিনার সংস্পর্শে আসে। এতে তিনি দৃষ্টি শক্তি হারান।

আলেকজান্দ্রা ডেইলি মেইলকে জানিয়েছেন, দুর্ভাগ্য মেনে নেয়া ছাড়া আর কিছুই করার নেই। চিকিত্সকরা আমার দৃষ্টির উন্নতির জন্য খুব একটা আশাবাদী নন। ক্ষতিটা খুব গভীর এবং ব্যাপক। আমি আশঙ্কা করছি আমি সম্পূর্ণ অন্ধ হয়ে যাব।

ট্যাটুশিল্পী পিয়োটারের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন আলেকজান্দ্রা। এতে ওই ট্যাটুশিল্পীকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত ।

 

মন্তব্য