| প্রচ্ছদ

উত্তরাঞ্চলে কর্মরত এনজিওগুলোর প্রধানদের নিয়ে বগুড়ায় সংলাপ

মুজিববর্ষে মানবিক কর্মকাণ্ড বাড়ানোর আহবান

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ২০৯ বার। প্রকাশ: ০৫ মার্চ ২০২০ ।

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা এসডিজি স্থানীয় পর্যায়ে বাস্তবায়ন ও যুবকদের অংশগ্রহণে করণীয় নিয়ে বগুড়ায় উত্তরাঞ্চলে কর্মরত বেসরকারি সংস্থাগুলোকে (এনজিও) নিয়ে সংলাপ করেছে এনজিও ব্যুরো। বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী সংলাপে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে এনজিওগুলোকে মানবিক কর্মকাণ্ড আরও বাড়ানোর আহবান জানানো হয়। সংলাপে প্রধান অতিথি ছিলেন এনজিও ব্যুরোর মহাপরিচালক কে এম আব্দুস সালাম।
সংলাপে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ১৬টিসহ ফরিদপুর ও রাজবাড়ি জেলার এনজিও প্রধানরা অংশ নেন। সংলাপে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) গবেষক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম। স্বাগত বক্তব্য দেন গ্রাম উন্নয়ন কর্মের (গাক) নির্বাহী পরিচালক ড. খন্দকার আলমগীর হোসেন। 
শহরের বনানী এলাকায় গাক টাওয়ারে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এনজিও ব্যুরোর মহাপরিচালক কে এম আব্দুস সালাম বলেন, এনজিওগুলো দেশের উন্নয়নে নানাভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সবার অংশগ্রহণের মাধ্যমে এসডিজি বাস্তবায়নে তাদের আরও বেশি কাজ করতে হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বছরব্যাপী মানবিক ও সামাজিক কাজের পরিধি বাড়ানোর আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আপনারা ক্ষুদ্র ঋণ নিয়ে কাজ করেন-যেটি মানুষ কখনো মনে রাখবে না। কিন্তু আপনারা যদি প্রতিবন্ধী ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান তাদের সহায়তা করেন তাহলে জনগণ আপনাদের মনে রাখবে। মুজিববর্ষে আপনারা আপনাদের মানবিক ও সামাজিক কাজের পরিধি আরও বাড়িয়ে দিন। জাতি আপনাদের স্মরণ করবে।’ সিপিডি’র গবেষক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম এসডিজি অর্জনের ক্ষেত্রে এনজিও প্রধানদেরকে তাদের নিয়মিত কার্যক্রমের সঙ্গে চারটি বিষয়ে বেশি করে নজর দেওয়ার আহবান জানান। এগুলো হলো-সচেতনতা বৃদ্ধি, প্রচারণা, বাস্তবায়ন ও পর্যবেক্ষণ।
বেসরকারি সংস্থা লাইট হাউসের প্রধান নির্বাহী হারুণার রশিদের সভাপতিত্বে সংলাপে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন বগুড়ার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ, জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আবু সাঈদ মোঃ কাওসার রহমান, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরর উপ-পরিচালক বিরাজ চন্দ্র সরকার ও টিএমএসএসের নির্বাহী পরিচালক ড. হোসনে আরা বেগম।

মন্তব্য