| প্রচ্ছদ

সাত মাস পর মুক্ত হচ্ছেন ফারুক আবদুল্লাহ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫৩ বার। প্রকাশ: ১৩ মার্চ ২০২০ ।

জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। গত আগস্টে অঞ্চলটির বিশেষ মর্যাদা বাতিলের জের ধরে তাকে প্রথমে গৃহবন্দী ও পরে গ্রেপ্তার করা হয়।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, শুক্রবার একটি নির্দেশনা প্রকাশ করে ফারুক আবদুল্লাহকে সাত মাস পর বন্দীদশা থেকে মুক্তির কথা জানাল জম্মু-কাশ্মীরের স্বরাষ্ট্র দপ্তর।

তিনবার জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন ফারুক আবদুল্লাহ। ন্যাশনাল কনফারেন্স থেকে পাঁচবার সাংসদও হয়েছেন। বর্তমানে লোকসভার সদস্য তিনি।

গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপের পর তাকে বন্দী করা হয়।

ওই মাসেরই ১৭ তারিখে ফারুকের ওপর জন নিরাপত্তা আইন প্রয়োগ করে কেন্দ্রীয় সরকার। এই আইনে বিনা বিচারে দু’বছর পর্যন্ত কাউকে আটকে রাখা যায়।

কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিলেন বিরোধীরা। তারপরও ছাড়া হয়নি ফারুককে। বরং ডিসেম্বরে তার বন্দিদশার মেয়াদ আরও তিন মাস বাড়ানো হয়।

অবিলম্বে ফারুক আবদুল্লাহর মুক্তি চেয়ে সম্প্রতি ৮টি বিরোধী দল কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছিল। সেই সঙ্গে তার ছেলে ওমর আবদুল্লাহ এবং আরেক সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির মুক্তির দাবিও জানানো হয়।

তারপরই জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের তরফে ফারুককে মুক্তি দেওয়ার কথা জানানো হলো। তবে ওমর ও মেহবুবাকে নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি।

মন্তব্য