| প্রচ্ছদ

উল্টো পথে গাড়ি আটকানোয় পুলিশকে চড় যুব মহিলা লীগ নেত্রীর

পুন্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫৯ বার। প্রকাশ: ১৪ মার্চ ২০২০ ।

উল্টো পথে গাড়ি চালাতে বাধা দেয়ায় গাজীপুরে এবার পুলিশ সদস্যকে চড়-থাপ্পড় মারলেন যুব মহিলা লীগ নেত্রী ও সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর রুহুননেছা রুনা (৪০)।

শনিবার দুপুরে মহানগরীর চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় অবৈধ ভাবে ইউন্টার্ন নেওয়াকে কেন্দ্র করে বাগ্‌বিতণ্ডার একপর্যায়ে ট্রাফিক কনস্টেবলের গায়ে হাত তোলেন তিনি। তিনি গাজীপুর মহানগর যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত নারী আসনের ৩১, ৩২ ও ৩৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর। খবর দেশ রুপান্তর

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়, চান্দনা চৌরাস্তা মোড়ে ইউন্টার্ন ও উল্টো পথে গাড়ি চালানো বন্ধে রশি টানিয়ে রাখা ছিল। কাউন্সিলর রুহুননেছা ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে রশি সরিয়ে ইউন্টার্ন নেওয়ার চেষ্টা করেন।

এ সময়ে সেখানে কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ সদস্য তাকে থামান। রুহুন নেছা নিজেকে কাউন্সিলর হিসাবে পরিচয় দিলেও পুলিশ তাকে ইউন্টার্ন নিয়ে উল্টো পথে গাড়ি নিতে বাধা দেন। পরে উভয়ের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে রুহুননেছা উত্তেজিত হয়ে ওই ট্রাফিক পুলিশের গালে চর দিয়ে বসেন এবং পুলিশ সদস্যের ইউনিফর্মের শার্টের বোতাম ছিঁড়ে ফেলেন।

পরে সেখানে থাকা ট্রাফিক পুলিশ বক্সে থেকে আরও পুলিশ এসে তাকে আটক করে বসিয়ে রেখে বাসন থানা-পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুর আড়াইটার দিকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যান।

কাউন্সিলর রুহুননেছা বলেন, চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় অনেকেই উল্টোপথে যাতায়াত করে থাকে। একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য তাদেরকে নিজের পরিচয় দিয়ে অনুরোধ করলেও তারা কথা রাখেনি। একপর্যায়ে পুলিশ এমন আচরণ করছিল যেন আমার উপড়ে এসে পড়বে। তখন নিজেকে রক্ষা করতে চর দিয়েছি।

বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম কাউছার চৌধুরী জানান, ওই নেত্রী পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা পুলিশ পালি, দুই টাকার পুলিশ একজন নির্বাচিত কাউন্সিলরকে বাধা দেয়’। ওই নেত্রীকে আটক করে থানা হেফাজতে রাখা রয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্য