| প্রচ্ছদ

করোনা আতংকে পর্যটন মৌসুমের ৮০ শতাংশ বুকিং বাতিল

পুন্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৬১ বার। প্রকাশ: ১৭ মার্চ ২০২০ ।

বাংলাদেশের পর্যটন খাতে পর্যটন মৌসুমের টার্নওভার প্রায় সাড়ে ৪ থেকে ৫ হাজার কোটি টাকা। কিন্তু এ বছর করোনার কারণে ইতিমধ্যে ৮০ শতাংশ বুকিং বাতিল করা হয়েছে, যা আগামী কয়েকদিনে প্রায় ৯৫ শতাংশে পৌঁছবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ফলে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টিকারী এ খাতে কর্মরতদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে চাকরি থেকে বিদায় করতে হচ্ছে।

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন টোয়াবের সভাপতি মো. রাফেউজ্জামান। খবর যুগান্তর অনলাইন

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, করোনাভাইরাসের কারণে দেশের পর্যটন খাত চরম ক্ষতির সম্মুখীন। এই ক্ষতি পোষাতে আপৎকালীন বিশেষ তহবিল গঠনসহ বেশ কিছু দাবি জানিয়েছে ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব)। সেই সঙ্গে ১০ম শেয়ারট্রিপ বাংলাদেশ ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ফেয়ার (বিটিটিএফ) পিছিয়ে দিয়েছে সংস্থাটি।

আগামী ৩ থেকে ৫ এপ্রিল এই ট্যুরিজম ফেয়ার হওয়ার কথা ছিল। তার পরিবর্তে নতুন করে আগামী ২৯ থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ ফেয়ারের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

ক্ষতি পোষাতে টোয়াবের পক্ষ থেকে কিছু দাবি জানানো হয়। এর মধ্যে রয়েছে প্রণোদনা দেয়া, সহজ সুবিধায় ও কম খরচে ভিসা দেয়া, বন্দর ও বিমানবন্দরগুলোতে অপ্রয়োজনীয় বিধিনিষেধ শিথিল করা, পর্যটকদের ওপর আরোপিত ট্যাক্স কমানো, ভ্রমণ স্থানগুলোর প্রচারে বরাদ্দ বাড়ানো, বিমানের টিকিটের ট্যাক্স কমানো। সরকারের পক্ষ থেকে ট্যুর অপারেটরদের সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ দেয়া ও পর্যটন সংশ্লিষ্ট সব কিছু সব ধরনের ভ্যাটের বাইরে রাখা।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ হোসেন, টোয়াবের সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও টোয়াবের পরিচালক (বাণিজ্য ও মেলা) আনোয়ার হোসেন।

মন্তব্য