| প্রচ্ছদ

রাণীনগরে হোম কোয়ারেন্টাইনে ৭ জন: অনেকের তথ্য জানেনা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ)
পঠিত হয়েছে ৯৫ বার। প্রকাশ: ১৯ মার্চ ২০২০ ।

নওগাঁর রাণীনগরে বিদেশ ফেরৎ সাত জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। বুধবার পর্যন্ত এসংখ্যা দুইজন থাকলেও ধীরে ধীরে তা বাড়ছে। তবে অনেকেই বিদেশ থেকে এসে ঘোরা ফেরা করলেও এর কোন তথ্য জানা নেই উপজেলা প্রসাশন ও স্বাস্থ্য বিভাগের। ফলে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি বাড়ছে বলে ধারনা করছেন সচেতন মহল। 
রাণীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সুত্রে জানাগেছে, গত মঙ্গলবার পর্যন্ত মাত্র দু’জনের তথ্য ছিল তাদের কাছে। এর পর ধীরে ধীরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তালিকায় যোগ হয় আরো তিন জনের নাম। তবে ইরাক ও সৌদি ফেরৎ দু’যুবকের তথ্য ছিলনা স্বাস্থ্য বিভাগ ও উপজেলা প্রসাশনের কাছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে গণমাধ্যম কর্মীদের নিকট থেকে জানতে পারেন ওই যুবকদের তথ্য। স্থানীয়রা জানান, এক যুবক গত ১৩ মার্চ সৌদি আরব থেকে বাড়ীতে ফিরে আসে এবং ১১ মার্চ ইরাক থেকে একজন বাড়ীতে এসে ঘোরা ফেরা করছিল। এসময় স্থানীয়রা চাপ প্রয়োগ করে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বাধ্য করে। সাত জনের মধ্যে কালীগ্রাম ইউনিয়নে তিন জন,পারইল ইউনিয়নে একজন এবং মিরাট ইউনিয়নে তিন জন রয়েছেন। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা যুবকরা সৌদি আরব,রোমান,মালেয়েশিয়া ও ইরাক প্রবাসী। 
রাণীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কেএইচএম ইফতেখারুল আলম খাঁন বলেন, এখনপর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এমন কোন রোগী রাণীনগর উপজেলায় সনাক্ত হয়নি। আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ইতি মধ্যে পশ্চিম বালুভরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুই ইউনিটের একটি আইসোলেশন সেন্টার খোলা হয়েছে।এছাড়া হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা সবাইকে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা নজরদারী করছেন। কোনরুপ লক্ষন দেখা দিলে সাথে সাথে ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
রাণীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন বলেন,ইতি মধ্যে প্রবাসীদের খবরা খবর জানতে ও করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন এবং সার্বিক সহযোগিতা করতে প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিদেশ ফেরৎ সবাইকে কমপক্ষে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইন মানতে হবে। হোম কোয়ারেন্টাইন ভঙ্গ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

মন্তব্য