| প্রচ্ছদ

করোনা আতঙ্ক জেলখানায়, দেশে দেশে বন্দীদের মুক্তি

পুন্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৮ বার। প্রকাশ: ২৬ মার্চ ২০২০ ।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ঝুঁকির মুখে পড়েছে কারাগারগুলোও। আক্রান্ত হওয়া থেকে বাঁচাতে দেশে দেশে বন্দীদের মুক্তি দেয়া হচ্ছে।

বিবিসি জানায়, পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতিমধ্যে ইরান কয়েক দফায় বহু বন্দীকে ছেড়ে দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, এমনকি ভারতেও কিছু বন্দীকে ছেড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

কভিড-১৯ এর সংক্রমণ থেকে রেহাই পেতে সামাজিক দূরত্বে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু জেলখানায় ধারণ ক্ষমতার চেয়েও বেশি বন্দী থাকায় সেখানে সেটি সম্ভব হচ্ছে না। ফলে বন্দীদের মধ্যে রোগটি ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা বেশি।

ইরানি রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়,  করোনার প্রকোপ মোকাবিলায় দেশটিতে ৮৫ হাজারের মতো বন্দীকে মুক্ত করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তাদের মধ্যে অনেক রাজনৈতিক বন্দীও রয়েছেন।

চীন ও ইউরোপের বাইরে ইরানেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

এদিকে মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে, দেশটির বিভিন্ন রাজ্যের জেলখানা থেকে বন্দীদের ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন রাজ্য ইতিমধ্যে এই সিদ্ধান্ত অনুমোদনও করেছে।

নিউইয়র্ক টাইমস জানায়, নিউ জার্সির কারাগার থেকে এক হাজারের মতো বন্দীকে ছেড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে কর্তৃপক্ষ।

সারা বিশ্বের মধ্যে মার্কিন জেলখানাগুলোতে সবচেয়ে সংখ্যক বন্দী আটক রয়েছে। ধারণা করা হয়, কেন্দ্রীয় ও রাজ্যের কারাগারগুলোতে ২৩ লাখের মতো বন্দী রয়েছেন।

রয়টার্স জানায়, নিউইয়র্কের জেলখানাতে কমপক্ষে ২৯ জন বন্দী এবং ১৭ জন কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যৌন হয়রানির অপরাধে নিউইয়র্কের একটি কারাগারে আটক রয়েছেন হলিউডের সাবেক প্রযোজক হার্ভে ওয়েনস্টেইন। তিনিও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এরপরই শহরটির মেয়র বিল ডে ব্ল্যাসিও কিছু বন্দীকে খুব দ্রুত ছেড়ে দেওয়ার কথা বলেছেন।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালও আটক বন্দীদের মধ্যে যারা বয়স্ক এবং যাদের নানা ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা আছে তাদেরকে ‘তাৎক্ষণিকভাবে’ মুক্তি দেওয়ার আহবান জানিয়েছে।

ব্রিটিশ সংস্থাটির নীতি বিষয়ক প্রধান অ্যালান হোগ্র্যাথ বলেছেন, ‘ছেড়ে দেওয়ার পর তারা যদি সমাজের জন্যে হুমকি হয়ে না দাঁড়ায় তাহলে তাদের ছেড়ে দেওয়া উচিত।’

যুক্তরাজ্যে কয়েকটি কারাগারে ইতোমধ্যেই বন্দীদের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটেছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, ৯টি কারাগারে ১৩ জন বন্দীর স্বাস্থ্য পরীক্ষায় এই ভাইরাসের সংক্রমণ নিশ্চিত করা হয়েছে।

 

মন্তব্য