| প্রচ্ছদ

বেতনের দাবিতে জুটমিল শ্রমিকদের বিক্ষোভ, পুলিশের গুলিতে নিহত ১

পুন্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫১ বার। প্রকাশ: ২৬ মার্চ ২০২০ ।

দিনাজপুরের বিরল উপজেলায় অবস্থিত রুপালী জুটমিলে বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভে গুলি চালিয়েছে পুলিশ। এতে ঘটনাস্থলে এক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। খবর দেশ রুপান্তর

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। গুলিতে নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসিম হাবিব।

এ ঘটনায় ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। নিহত ওই শ্রমিক বিরল পৌরসভা এলাকার হোসনা গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে মো. সুরত আলী (৩৫)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, তিন সপ্তাহের বকেয়া বেতনের দাবিতে বুধবার সন্ধ্যা থেকে বিরলের রুপালী জুট মিলের শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করে।

একপর্যায়ে সেখানে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় পুলিশ কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলেই সুরত আলী নামের এক ব্যক্তি নিহত হন।

এই সংঘর্ষের ঘটনায় প্রায় ১০ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। ওই মিলটি বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল লতিফের বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার নিহতের ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটিতে দুজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও একজন গোয়েন্দা শাখার ইন্সপেক্টরকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার।

এদিকে একই ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রটকে নিয়ে ২ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘বুধবার রাতের পুলিশের গুলিতে সুরত আলী নামের একজন ব্যক্তি নিহতের ঘটনায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। তারা আগামী ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবেন।’

তিনি বলেন, এখানে পুলিশের কোনো গাফিলতি আছে কিনা সেই বিষয়টাও আমরা খতিয়ে দেখছি। নিহতের ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার একটি মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’

 

মন্তব্য