| প্রচ্ছদ

দেশের বাইরে আয়ার‌্ল্যান্ড, আমেরিকা, সিঙ্গাপুর ও ব্রাজিলে পাঠক বেশি

পুণ্ড্রকথায় প্রতিদিন চোখ রাখছেন ১৫ হাজার মানুষ

বিশেষ প্রতিবেদন
পঠিত হয়েছে ২৮২ বার। প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০২০ ২৩:১৬:১৮ ।

বগুড়া থেকে প্রকাশিত অনলাইন দৈনিক ‘পুণ্ড্রকথা’র পাঠক দিন দিন বেড়েই চলেছে। চলতি বছরের মার্চ মাসে ৪ লাখ ৭১ হাজার ৫০৭ জন পাঠক ‘পুণ্ড্রকথা’য় চোখ রেখেছেন। অর্থাৎ গেল মার্চে প্রতিদিন গড়ে ১৫ হাজার ২১০জন পাঠক একবারের জন্য হলেও ‘পুণ্ড্রকথা’র ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেছিলেন।
ঠিক এক বছর আগে ২০১৯ সালের মার্চে ‘পুণ্ড্রকথা’র পাঠক ছিলেন ১ লাখ ২৮ হাজার ৫৫জন। যা প্রতিদিনের হিসাবে ৪ হাজার ১৩০জন। অর্থাৎ ‘পুণ্ড্রকথা’য় এক বছরে পাঠক বেড়েছে প্রায় ২৭০ শতাংশ। 
শুধু দেশেই নয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারি বগুড়া তথা উত্তরাঞ্চলের বাসিন্দারাও এখন নিয়মিত ‘পুণ্ড্রকথা’ পড়েন। অ্যালেক্সার রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রবাসীদের মধ্যে ‘পুণ্ড্রকথা’ সবেচেয়ে বেশি পড়েন আয়ারল্যান্ডে বসবাসতরত বাংলাভাষাভাষীরা। এরপরেই রয়েছেন আমেরিকা, সিঙ্গাপুর এবং ব্রাজিলের বাঙালিরা। অ্যালেক্সার র‌্যাংকিংয়েও এগিয়ে যাচ্ছে ‘পুণ্ড্রকথা’।
বাংলাদেশের উত্তরের জনপদ- আড়াই হাজার বছর পূর্বে যার নাম ছিল ‘পুণ্ড্রবর্ধন’। প্রাচীন সেই জনপদের রাজধানী ‘পুণ্ড্রনগর’ গড়ে উঠেছিল আজকের বগুড়ার মহাস্থানগড়ে। ‘পুণ্ড্রবর্ধন’ এবং তার রাজধানী ‘পুণ্ড্রনগর’-এর ইতিহাস-ঐতিহ্য, শিল্প-সংস্কৃতি এবং এ অঞ্চলের মানুষের সুখ-দুঃখ ও তাদের উন্নয়ন ও বঞ্চনার কথা বাংলাভাষী প্রতিটি মানুষের কাছে তুলে ধরার প্রয়াসের নাম ‘পুণ্ড্রকথা’।
প্রতিশ্রুতিশীল একদল মানুষ- যাঁরা মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে জন্ম নেওয়া বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ একটি দেশ হিসেবে দেখতে চান তাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা এবং তথ্য ও খবরের নেশায় ছুটে বেড়ানো এক ঝাঁক তরুণের মিলিত প্রচেষ্টায় সরকারি সংস্থা বিটিসিএল থেকে ডোমেইন ক্রয়ের মাধ্যমে ২০১৮ সালের ১৮ মে পরীক্ষামূলকভাবে যাত্রা শুরু হয় ‘পুণ্ড্রকথা’র। সরকারি রেজিস্ট্রেশন তথা অনুমোদন পেতে এরই মধ্যে তথ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছে। 
পূর্ণাঙ্গ একটি দৈনিক হিসেবে নিজেকে প্রস্তুত করার স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে চলা নবীন এই দৈনিকটির ফেসবুক পেজে লাইক এবং শেয়ারের সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে। সাড়া পাওয়া যাচ্ছে ‘পুণ্ড্রকথা’র ইউটিউব চ্যানেলেও। ২০১৮ সালের ১৮ মে পরীক্ষামূলক যাত্রা শুরুর দিন থেকে গত ৩১ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত ১ বছর ১০ মাস ১৩ দিনে ‘পুণ্ড্রকথা’ পড়া হয়েছে মোট ৩৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬৩২ বার।

এত অল্প সময়ে পাঠকদের কাছ থেকে এমন অভূতপূর্ব সাড়া পাওয়ায় ‘পুণ্ড্রকথা’ পরিবার দারুণ উজ্জীবিত। ‘পুণ্ড্রকথা’র প্রকাশক পাঠকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেছেন, “আমরা আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ‘পুণ্ড্রকথা’-কে আরও সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলতে চাই। আশাকরি মূল্যবান পরামর্শ দিয়ে আপনারা ‘পুণ্ড্রকথা’-কে একবিংশ শতাব্দীর পূর্ণাঙ্গ দৈনিক হিসেবে গড়ে তুলতে সহযোগিতা করবেন।”
 

মন্তব্য