| প্রচ্ছদ

অন্ধজনে আলো দেওয়ার যন্ত্র

পুন্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৩ বার। প্রকাশ: ১৪ এপ্রিল ২০২০ ১৪:৩৯:২২ ।

দৃষ্টিহীন ব্যক্তিদের জন্য উন্নত প্রযুক্তির গ্লাস নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ‘ইসাইট’ বয়স্ক ব্যক্তিদের চোখের জ্যোতি ফেরানোর নতুন ডিভাইস বাজারে আনছে।

টরেন্টো-ভিত্তিক কোম্পানিটির সিইও বব ভেটারস জানিয়েছেন, তৃতীয় প্রজন্মের এই ডিভাইসের নাম ইসাইট ৩ (eSight 3)।

‘এটি অনেক শক্তিশালী,’ প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট সিনেটকে ভেটারস বলেন, ‘সাধারণ গ্লাসের থেকে আমরা এই ডিভাইসে বেশি উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করেছি।’

যারা দৃষ্টিশক্তি একদম হারিয়ে ফেলেছেন তাদের চলাচলে স্বাধীনতা ফেরাতে এই ডিভাইসে হাই-রেজ্যুলেশন স্ক্রিন, স্মার্ট অ্যালগরিদম এবং কাটিং-এজ ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে।

এর মাধ্যমে একজন বয়স্ক দৃষ্টিহীন ব্যক্তি একদম পরিষ্কার দেখতে পাবেন বলে দাবি কোম্পানিটির।

যেভাবে কাজ করবে ডিভাইস: ইসাইট ৩ চোখে পরতে হবে। ‘সেন্ট্রাল ভিশন লস’ অর্থাৎ যারা একদম সোজা দেখতে পান না, পাশে হালকা ঝাপসা থাকে; তাদের জন্য এটি ভালো কাজ করবে। যারা পুরোপুরি দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেছেন কিংবা অন্ধ হয়ে গেছেন তারাও দেখতে পাবেন।

এর বাইরের দিকটা অনমনীয় এবং অসমতল প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি।

ইসাইটের প্রধান প্রযুক্তি বিষয়ক কর্মকর্তা চার্লস লিম একে ‘সুপার কম্পিউটারের’ সঙ্গে তুলনা করেছেন, ‘এর সঙ্গে আপনি প্রচুর ফিচার যোগ করতে পারবেন। এটি মূলত সুপার কম্পিউটারের মতো।’

২০১৯ সালে কম্পিউটার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ডেলের সঙ্গে একটি ইভেন্ট আয়োজন করে ইসাইট। সেই অনুষ্ঠানে অনেক দৃষ্টিহীন শিশুর অভিভাবক চোখের জল ফেলেন। প্রথমবারের মতো তাদের সন্তানেরা দেখতে পাওয়ায় তারা কোম্পানিটিকে ধন্যবাদ জানান।

খুচরা বাজারে নতুন ডিভাইসটির দাম কত পড়বে, সেটি এখনো জানা যায়নি। তবে কোম্পানিটির মেডিকেল ডিভাইসের দাম সাধারণত ৬ হাজার ডলার থেকে শুরু হয়।

কভিড-১৯’র প্রভাব: ডিভাইসটি তৈরি করতে গিয়ে নভেল করোনাভাইরাসের কারণে কিছুটা সমস্যায় পড়েছে ইসাইট। কারণ তাদের অনেক যন্ত্রাংশ চীন থেকে যায়। তবু কাজ চালিয়ে যেতে কর্মকর্তারা বৈশ্বিক অংশীদারের মাধ্যমে কানাডা থেকে বিকল্প উৎপাদন উপকরণ সংগ্রহ করেছেন।

তাদের অনেক কর্মকর্তা গৃহবন্দী হয়ে পড়লেও ডিভাইসটির কাজ প্রায় শেষ দিকে। ইসাইট জানিয়েছে, কয়েক মাসের ভেতর এটি অনলাইনে বিক্রি শুরু হবে।

মন্তব্য