| প্রচ্ছদ

বাড়ি রংপুর, চট্টগ্রামে শ্রমিক হিসেবে কর্মরত

বগুড়ায় মহাসড়কের পাশে পড়ে থাকা  সংজ্ঞাহীন সেই লোকটির পরিচয় মিলেছে

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ১১২৯ বার। প্রকাশ: ১৯ মে ২০২০ ১৩:৫৭:০১ ।

বগুড়ায় মহাসড়কের পাশে পড়ে থাকা সংজ্ঞাহীন অজ্ঞাতনামা সেই ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া গেছে। ৩৫ বছর বয়স্ক ওই ব্যক্তির নাম সিরাজুল ইসলাম। বাড়ি রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার শীতলগাড়ি গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের আব্দুল বারীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন শ্রমিক এবং চট্টগ্রামে কর্মরত।
বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. শফিক আমিন কাজল জানান, ওই ব্যক্তি এখনও সজ্ঞাহীন। তবে তার সঙ্গে থাকা ব্যাগের ভেতরে মোবাইল ফোন নম্বর এবং ভোটার আইডি কার্ডের নম্বর থেকে মঙ্গলবার সকালে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। তিনি বলেন, ‘তার গ্রামের স্থানীয় এক ইউপি সদস্যকে ফোনে খবর দেওয়া হয়েছে। আশা করছি তারা খুব তাড়াতাড়ি বগুড়ায় আসবেন।’
বগুড়া শহর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে মহাস্থান বাসস্যান্ডে যাত্রী ছাউনির ভেতরে সোমবার বিকেলে এক ব্যক্তিকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ফোন দেন। এরপর তারা বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে খবর দেন। তখন মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আরএমও ডা. শফিক  আমিন কাজল তার ৩ সহকর্মীসহ অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে ইফতারির আগ মুহুর্তে ঘটনাস্থলে যান। এরপর লুঙ্গি ও শার্ট পড়া ওই লোকটিকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে আনেন।
তবে স্থানীয় লোকজন করোনা সন্দেহভাজন হিসেবে উল্লেখ করলেও তার মধ্যে সে ধরণের কোন লক্ষণ না থাকায় ওই ব্যক্তিকে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের গ্রীনজোনে (করোনা নয় এমন রোগীদের জন্য নির্ধারিত) রাখা হয়।
মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আরএমও ডা. শফিক আমিন কাজল জানান, লোকটির পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার জন্য তারা তার ছবি ও ভোটার আইডি কার্ডের নম্বর সম্বলিত কাগজটি ফেসবুকে শেয়ার করেছিলেন। এলাকার স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য জানান, সিরাজুল ইসলাম চট্টগ্রামে একটি কারখানায় শ্রমিক হিসেবে কর্মরত। 
তিনি বলেন, সংজ্ঞাহীন হলেও সিরাজুল ইসলাম নামে ওই ব্যক্তির রক্তচাপ এবং নাড়ির স্পন্দন ভাল। যে কারণে তারা ধারণা করছেন যে হয়তো কেউ তাকে কোন কিছু খাইয়ে অজ্ঞান করেছে। যেহেতু তার কাছে একটা ব্যাগ থাকলেও কোন মোবাইল ফোন কিংবা টাকা-পয়সা নেই সে কারণে ওই ধারণা আরও বদ্ধমূল হয়েছে।’

মন্তব্য