| প্রচ্ছদ

নওগাঁয় ২৬৭টি নমুনায় তিন পুলিশ,শিশু-কিশোরসহ ৬ জনের করোনা শনাক্ত: তিন সুস্থ্য ব্যাক্তি আবারো পজেটিভ

নওগাঁ প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৬১ বার। প্রকাশ: ২০ মে ২০২০ ১৪:০১:২১ ।

নওগাঁয় গত ২৪ ঘন্টায় ২৬৭ টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে নতুন করে তিন পুলিশ,এক শিশু ও কিশোরসহ ৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া আরো ৩ সুস্থ্য ব্যাক্তির দ্বিতীয় দফার নমুনা পরীক্ষায় আবারো করোনা পজেটিভ হযেছে। এনিয়ে জেলায় এপর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্ত রোগী সংখ্যা হলো ৭৯ জন। এদের মধ্যে ১৩ জন সুস্থ হয়েছেন। 
বুধবার সকালে নওগাঁ জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আ ম আখতারুজ্জামান আলাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 
জেলা সিভিল সার্জন কন্ট্রোল রুম থেকে জানা গেছে মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বুধবার সকাল ১০ টা পর্যন্ত ২৬৭ টি নমুনার ফলাফল পাওয়া যায়। এর মধ্যে জেলার পত্নীতলা থানার দুই পুলিশ সদস্য ওই থানার স্টাফ কোয়াটারের রাধুনী,জেলা হেড কোয়াটারের অপর আরো এক পুলিশ সদস্য,মহাদেবপুর উপজেলার এক শিশু ও জেলা শহরের মুক্তির মোড় এলাকার এক কিশোর রয়েছে।
জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আ ম আখতারুজ্জামান আলাল জানান জেলার বাহিরে কোথাও না গেলেও এই প্রথম জেলা শহরের মুক্তির মোড় এলাকার ১৪ বছরের এক কিশোর করোনা আক্রান্ত হযেছে। ওই কিশোর গত ৯ মে শরীরে জ্বর ও ব্যথা নিয়ে সদর হাসপাতলে চিকিৎসার জন্য আসলে, তাকে হোম কোয়ারেন্টেইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয় এবং  ১২ মে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরিক্ষার জন্য পাঠানো পর  তার ফলাফল পজেটিভ আসে। করোনা আক্রান্ত কিশোর বলেন বর্তমানে তার হালকা জ্বর আছে তবে এখনো সুস্থ্য আছি।  আমি এরমধ্যে জেলার বাহিরে যায়নি এমনকি শারিরিক দূরত্ব বজায় রেখে চলেছি। কিভাবে করোনা আক্রান্ত হলাম বুঝতে পারছি না। তবে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলেন কোন না কোন ভাবে ওই কিশোর করোনা আক্রান্ত ব্যাক্তির সংস্পর্শে আসার কারনেই সে করোনা আক্রান্ত হযেছে। উপজেলা প্রশাসন ওই বাড়ি লোকডাউন ঘোষনা করে তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেনা দিয়েছেন। এদিকে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার  বকাপুর গ্রামের ৮ বছরের শিশু তার চাচার সংস্পর্শে এসে করোনা আক্রান্ত হয়েছে। তার চাচা পদ্মা সেতুতে কাজ করেন গত ২৫ এপ্রিল ০৫ দিনের ছুটি বাড়িতে আসেন। বিষয়টি জানার পর  ২৯ এপ্রিল তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। এর আগেই ৩ মে তিনি কর্মস্থলে ফিরে যান। ১২ মে তার রেজাল্ট পজেটিভ আসে। ওইদিনেই ওই বাড়ির ৮ বছরের শিশুসহ আরো ১৩ জন সদস্যের নমুনা সংগ্রহ করে বাড়ি লোকডাউন ঘোষনা করা হয়। ওই ১৩ জনের মধ্যে ১৯ মে রাতে ওই শিশুর নমুনায় করোনা পজেটিভ পাওয়া যায়। অপরদের নমুনায় নেগেটিভ এসেছে । এছাড়া 
নওগাঁর পত্নীতলার থানার দুই কনস্টেবল ও স্টাফ কোয়াটারের রাধনীর নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে ওই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা,ওসি(তদন্ত)সহ ৭ পুলিশ সদস্য ও রাধুনীর করোনা আক্রান্ত হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের মতে পূর্বের ওসিসহ আক্রান্ত ৫ জনের সংর্স্পশে এসে পরের এই তিন জন করোনা আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারে। আক্রান্ত দুই পুলিশ সদস্য কে প্রাতিষ্ঠানিক হোম কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়েছে এবং রাধুনীর বাড়ি লোকডাউন করে তাকে বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এছাড়া জেলা হেডকোয়াটারের অপর এক পুলিশ সদস্য পারিবারিক কাজে ছুটি নিয়ে পাবনায় যান। ছুটি শেষে তিনি কর্মস্থলে যোগদান করেন। ছুটি থেকে আসার কারনে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। পরীক্ষার ফলাফল পজেটিভ আসে। বর্তমানে তার করোনার কোন উপসর্গ নেই। তাকে হোম আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। 
এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে ৯৫ জনকে হোম কোয়ারেনটাইনে পাঠানো  হয়েছে। এদের মধ্যে নওগাঁ সদর উপজেলায় ২৮ জন, রানীনগর উপজেলায় ২ জন, মহাদেবপুর উপজেলায় ৮ জন, মান্দা উপজেলায় ২ জন, বদলগাছি উপজেলায় ১১ জন, পত্নীতলা উপজেলায় ২ জন, ধামইরহাট উপজেলায় ১০ জন, নিয়ামতপুর উপজেলায় ২ জন, সাপাহার উপজেলায় ১১ জন এবং পোরশা উপজেলায় ১৯ জন। ২৪ ঘন্টায় কোয়ারেনটাইন থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৫৪ জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেনটাইনে রয়েছেন ১ হাজার ৪শ ৩০ জন।

মন্তব্য