| প্রচ্ছদ

যেভাবে ৩২ কেজি ওজন কমিয়েছেন সারা

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৯১ বার। প্রকাশ: ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮ । আপডেট: ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮ ।

কিছুদিন আগেই মুক্তি পেল কেদারনাথ। পরবর্তী তালিকায় রয়েছে সিমবা নামের আরেকটি চলচ্চিত্র। সন্দেহ নেই এই দুটি চলচ্চিত্র দিয়েই রূপালি পর্দায় নিজের অবস্থানটা পাকা করে নিচ্ছেন নতুন মুখ সারা আলি খান। কিন্তু রূপালি পর্দার সারা আর তার আগের সারা আলি খানের মধ্যে রয়েছে বিস্তর ব্যবধান! কীভাবে? ক্যারিয়ার জীবনে প্রবেশের আগে তার ওজন ছিল ৯৬ কেজি। শুধুমাত্র এই কয়েক মাসের মধ্যেই তাকে মেদ ঝরাতে হয়েছে ৩২ কেজিরও বেশি। সব মিলিয়ে এটি ছিল সারার জন্য ভিন্ন এক যাত্রা।

সারার ফিটনেস যাত্রা
শুটিং শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই তিনি প্রশিক্ষণ শুরু করেন প্রশিক্ষক নম্রতার তত্ত্বাবধানে। বলিউডের অন্যান্য তারকা যেমন কারিনা কাপুর, সোনাক্ষি সিনহা, মালাইকা অরোরাসহ অনেকেরই প্রশিক্ষক তিনি। নম্রতার তত্ত্বাবধানেই শুরু হয় সারার প্রতিদিনকার ফিটনেস যাত্রা।
বুট ক্যাম্প ট্রেইনিং
নম্রতার পাশাপাশি প্রশিক্ষক সিন্ডি জর্ডিয়ানের বুট ক্যাম্পেও নাম লেখান সারা। শরীরের অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে একটানা এই বুট ক্যাম্পে নিজেকে প্রস্তুত করেন তিনি।
খেলাধুলার প্রতি ঝোঁক
শুধু সারাই নন, ছোট নবাবের পুরো পরিবারই খেলাধুলার প্রতি আসক্ত। সেই আসক্তিটাই লুফে নেন সারা। দিনের কিছুটা সময় তিনি বরাদ্দ রাখেন টেনিস খেলার জন্য। আর এ সময় তার প্রতিপক্ষ হিসেবে থাকতেন বাবা সাইফ আলি খান কিংবা ছোট ভাই ইব্রাহিম।
পিৎজা থেকে সালাদ!
৩২ কেজি ওজন কমানো তো আর সহজ ব্যপার নয়! তাও আবার অল্প কয়েক মাসে। এ জন্যে সারাকে পরিবর্তন করতে হয়েছে তার পুরো খাদ্যাভ্যাস। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়ে সারার সবচেয়ে পছন্দের খাবার ছিল পিৎজা। সেই পিৎজা বাদ দিয়ে সালাদ খেতে শুরু করেন সারা। প্রোটিন বার আর সালাদ দিয়েই ডায়েট তালিকা পাল্টে ফেলেন তিনি।
যেকোন কাজে চাই মায়ের পরামর্শ
এত গেল শারীরিক বিভিন্ন ফিটনেস প্রশিক্ষণ। এগুলো ছাড়াও সারার এই যাত্রাপথে অনন্য ভূমিকা রয়েছে তার মা অমৃতা সিংয়ের। বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে সারা নিজেই জানিয়েছেন, অমৃতা সিংই তার জীবনের প্রথম অনুপ্রেরণা। এমনকি যেকোনও উপদেশের জন্যই তিনি সবার আগে ছুটে যান তার মায়ের কাছে। ফিটনেস যাত্রায়ও অন্যতম ভূমিকা রয়েছে অমৃতার।
আত্মবিশ্বাস না হারানো
আগের সারা থেকে এখনকার সারা আলি খান হয়ে ওঠা মোটেও সহজ ছিল না। এজন্যে সারাকে শুনতে হয়েছে বিভিন্ন কথাও। কিন্তু তারপরেও দমে যাননি তিনি। আমেরিকায় থাকাকালীন সময়ে বলিউডের কিছু গানে তার কয়েকটি নাচের ভিডিও প্রকাশ পায়। সে সময় থেকেই তিনি নিজেকে রূপালি পর্দার জন্য প্রস্তুত করছিলেন বলে জানান তিনি।
এছাড়াও জরায়ুর ‘পলিস্টিক ওভারি ডিসঅর্ডার’ এ ভুগছেন তিনি বেশ দীর্ঘ সময় ধরে। যার জন্য ওজন কমানো অনেকটা কঠিন হয়ে উঠছিল সারার জন্যে। তারপরেও নিজের আত্মবিশ্বাস এবং ইচ্ছাশক্তি দিয়েই শুরু করেছিলেন সফল এই যাত্রার পথচলা।

সূত্রই-টাইমস   

মন্তব্য